মোহনীয় পুরুলিয়া

শান্তনু চ্যাটার্জি

অনেকদিন পর পুরুলিয়ায় এলাম। ফাগুনের পুরুলিয়ার এক অনবদ্য রূপ। সরল দেহাতি লোকজন, হালকা ঠান্ডা মেশানো বাতাস আর দিগন্ত জোড়া টাঁড়ের মাঝে লাল পলাশের উকিঁঝুকি। এ এক অন্যরকম ভালোলাগা। যাচ্ছিলাম বড়াভূম। রাস্তায় বাস আচমকাই দাড়িয়ে গেল। কিছু সমস্যা হয়েছে কল-কব্জায়। বাইরে তাকিয়ে দেখি বিস্তীর্ণ দু’পার শুধু উঁচু-নিচু জমি, আর মাঝেমধ্যে আগুন রঙের পলাশ নিজ অস্তিত্বে জানান দিচ্ছে। ব্যাগটা কাঁধে ফেলে হুড়মুড়িয়ে নেমে পড়লাম।

আরও পড়ুন: || জালিয়ান‌ওয়ালা_বাগ ||

আঁকাবাঁকা সড়কটা চলে গেছে বহুদূর গ্রাম থেকে শহরের খোঁজে…

কঠিন পাথুরে মুখের কন্ডাকটার জানতে চাইল— কুথায় যাবেন বাবু? বলরামপুর আর কিছুটা রাস্তা বটে। এখানে কিছু পাবেক নাই। বাসে উঠে পড়ুন।

তারে বসা নীলকণ্ঠ পাখি

আমি বলতে চাইছিলাম, হারিয়ে যেতে চাই ওই পলাশের জঙ্গলে। … বলতে পারলাম না।

বললাম— ঠিক আছে, চাপ নেই। তুমি যাও। আমার এখানেই একটু কাজ আছে।

ও কি বুঝল জানি না, বাসটা ছেড়ে চলে গেল। আমি কিছুক্ষণ তাকিয়ে রইলাম এক অনাবিল আদিম আনন্দে বাসটার যাত্রাপথের দিকে।

আরও পড়ুন: থার্ড থিয়েটার আন্দোলনের পথিকৃৎ বাদল সরকার, ফিরে দেখা

অন্য ভানুমতি…

আর কেউ নেই। এখন আমি আর তুমি, সুন্দরী পুরুলিয়া। তোমার স্পর্শ, তোমার গয়ের গন্ধ আমাকে শিহরিত করবে। মেঠো চড়াই, হলুদ মাথা হটিট্টি আর তারে বসা নীলকণ্ঠ আমাকে বলল— যাও, হারিয়ে যাও, দূরে ওই পলাশের আগুনে।

আমি হাঁটতে থাকলাম। কিছু সময় পর, দেখি কালো শরীর জুড়ে সামান্য কিছু সবুজ পাতা নিয়ে, হাতে, মাথায় আগুন পলাশ ফুটিয়ে আদিম পুরুলিয়া আমায় ঘিরে ধরেছে। আমি সেই আগুনে পরম মমতায় সেদ্ধ হচ্ছি। দূরে, ওই ধোঁয়ামাখা অযোদ্ধা আমায় ফিস ফিস করে ডাকছে— কাছে এসো, আমার বুকে মাথা রাখো। আমার বাহুমূলের গন্ধ তোমায় পাগল করবে। আমি অযোদ্ধা, কত যুগ ধরে দারিয়ে আছি তোমারই অপেক্ষায়…

চল… চল… হাট…

আচমকা মোহভঙ্গ। ইস্পাত নীল মৌটুসির ডাকে। ক্রমাগত বলে চলেছে, যাও ফিরে যাও। ওই কর্পোরেট জগৎ তোমার প্রতিটা ক্ষণ কিনে রেখেছে। যাকে আজ তুমি তোমার সময় বলছ, এটা তোমার নয়। এটা ওই দ্রুত গতির বিলেতি ভাষা বলা বসের কাছে বিক্রি করে দিয়েছ।

হ্যাঁ। সত্যি। কর্পোরেট বস আউটপুট চাইবে।

আউটপুট… আউটপুট…

জবাব নেই।

দিনের শেষে…

মনে থেকে যাবে, অযোদ্ধা। পলাশ বন। নীলকণ্ঠের অবাক বসে থাকা, আর কঠিন মানুষগুলোর বিকেলের হলুদ আলোয় বাড়ি ফেরা…

ছবি: লেখক

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *