সীমান্তে ভারত-চিন উত্তেজনার আবহেই সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা, যুদ্ধের ইঙ্গিত!

Mysepik Webdesk: লাদাখে (Ladakh) ভারত-চিনের মধ্যে উত্তেজনা কিছুতেই কমছে না। দু’দেশের সেনাদের মধ্যে ঘটে যাওয়া সংঘাতকে কেন্দ্র করে ক্রমশ উত্তেজনার পারদ চড়ছে দু’দেশের সেনার মধ্যে। চিন সেনার যেকোনও ধরণের উস্কানিমূলক পদক্ষেপের কঠোর জবাব দিতে তৈরি ভারতীয় সেনাও (Indian Army)। সীমান্তে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্যেই ভারতের সেনাপ্রধান (Army Chief) স্বশরীরে গিয়ে সীমান্ত পরিদর্শন করে এসেছেন। আলোচনা করে এসেছেন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের কৌশল নিয়ে।

আরও পড়ুন: ত্রাণ বিলি করায় দুর্নীতির প্রমান পেলেই তাড়িয়ে দেবে দল, কঠোর অবস্থান নিল তৃণমূল কংগ্রেস

এই পরিস্থিতিতে আর হাত গুটিয়ে বসে নেই আমেরিকা (America)। মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেওয় (Mike Pompeo) স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, চিনের মোকাবিলায় আসছে মার্কিন সেনা। জানা গেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (President Donald Trump) ভারত-চিনের মধ্যে শান্তি স্থাপনের বার্তা দিলেও পেছনে তিনি চিনকে উপযুক্ত শিক্ষা দিতেই তৈরি হচ্ছেন। এই ঘটনা এবার তার স্পষ্ট প্রমান দিল। বৃহস্পতিবার ব্রাসেলস ফোরামের ভার্চুয়াল সম্মেলনে মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও বলেন, ভারত ও দক্ষিণ এশিয়ার ওপর চিনের দাদাগিরির কারণেই ইউরোপ থেকে মার্কিন সেনার সংখ্যা কমানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন: মর্মান্তিক! বিহারে একদিনেই বাজে পড়ে মৃত ৮৩

পাশাপাশি তিনি চিনের কমিউনিস্ট পার্টির সমালোচনা করে বলেন, চিনের কমিউনিস্ট পার্টির এই বাড়বাড়ন্ত শুধুমাত্র ভারতের জন্য নয়, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্সও চিনের হুমকির মুখে। পাশাপাশি দক্ষিণ চিন সাগরে চিনের তত্‍‌পরতা নিয়েও বেজায় ক্ষুব্ধ আমেরিকা। তাই এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতেই জার্মানি থেকে সরিয়ে নিয়ে আসা হচ্ছে মার্কিন সেনাকে। উল্লেখ্য, রাশিয়াকে (Russia) ঠেকাতেই পূর্ব ইউরোপের দেশগুলিতে মার্কিন সেনা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আমেরিকা। প্রায় ৬২ হাজারের বেশি মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে ইউরোপে। চিনা হুমকির কথা বলতে গিয়ে, মার্কিন বিদেশসচিব মূলত ভারতের সঙ্গে চিনের রক্তক্ষয়ী সংঘাত, বেজিংয়ের দক্ষিণ চিন সমুদ্রে একাধিক কার্যকলাপ, চিনের অর্থনৈতিক নীতি প্রমাণ হিসাবে পেশ করেন।

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *