মানবিক পাক ক্রিকেট বোর্ড: ৫ মাস পর খুব শীঘ্রই সানিয়া-ইজহান-শোয়েবের পুনর্মিলন

Pak

Mysepik Webdesk: সম্প্রতি ভারতীয় টেনিস কুইন সানিয়া মির্জা এক সংবাদ সংস্থাকে বলেছিলেন, “শোয়েব মালিক পাকিস্তানে আছেন এবং আমি এখানে আছি। আমাদের পক্ষে এটি একটি কঠিন সময়। কারণ, আমাদের সন্তান রয়েছে। জানি না ইজহান আবার কখন তার বাবার সঙ্গে দেখা করতে পারবে। আমরা দু’জনেই খুব ইতিবাচক মানুষ। শোয়েবের মায়ের বয়স ৬৫ এবং শিয়ালকোটে একা থাকেন। তাই শোয়েবকে তাঁর আরও বেশি প্রয়োজন ছিল। যেটা সঠিক মনে হয়েছে, আমরা সেটাই করেছি। আমি আশা করি আমরা শীঘ্রই এই মহামারি থেকে নিরাপদে বেরিয়ে আসব।”

আরও পড়ুন: চিনা সংস্থা ভিভোর সঙ্গে বিচ্ছেদ এখনই নয়, জানালেন বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল

হায়দরাবাদি কন্যা আরও জানিয়েছিলেন যে, আজকাল তিনি তাঁর পরিবার নিয়ে ভাবছেন। তিনি বলেছিলেন, ”আমি সাধারণত এই জিনিসগুলি নিয়ে চিন্তা করি না। তবে কিছুদিন আগে রাতে আমি ভবিষ্যতের কথা ভেবে খুব ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। বাড়িতে যখন একটি ছোট বাচ্চা এবং একজন বৃদ্ধ বাবা-মা থাকে, তখন কেবল তাঁদের সম্পর্কেই চিন্তা হয়। কাজ এবং টেনিসের কথা মনে আসে না।”

প্রায় ৫ মাস কেটে গেছে সানিয়া মির্জা এবং তাঁর পুত্র ইজহান মির্জা মালিক শোয়েব মালিকের থেকে দূরে আছেন। সানিয়া তাঁর টেনিস নিয়ে ব্যস্ত থাকার সময়েই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শুরু হয় লকডাউন। সেই সময় তিনি ছিলেন হায়দরাবাদে, নিজের মা-বাবার সঙ্গে। সেই থেকেই তিনি হায়দরাবাদে আটকে। অন্যদিকে, তাঁর স্বামী শোয়েব মালিক তাঁর বাবা-মায়ের সঙ্গে পাকিস্তানের শিয়ালকোটে রয়েছেন। তবে এখন মনে হচ্ছে, শোয়েব-সানিয়া-ইজহানের পুনর্মিলনী শেষপর্যন্ত ঘটবে।

আরও পড়ুন: এবার করোনা আক্রান্ত মহারাজের প্রিয়জন

ইংল্যান্ডের সঙ্গে খেলতে আগামী ২৮ জুন বিমানে রওনা হবে পাকিস্তান ক্রিকেট দল। ব্রিটিশ-ভূমে সিরিজের জন্য ২৯ জন ক্রিকেটারকে নিয়ে মোট ৪৩ সদস্যের দল নির্বাচিত করেছে পিসিবি। কিন্তু ২৮ তারিখ সেই চার্টার্ড বিমানে ৪৩ জনের পরিবর্তে ইংল্যান্ডে যাবেন ৪২ জন পাক ক্রিকেটার। কেন? কারণ পাক দলের বাকি সদস্যদের সঙ্গে যাবেন না শোয়েব মালিক। প্রায় একমাস পর অর্থাৎ ২৪ জুলাই তিনি ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনার জন্য বিমান ধরবেন। এমনই ছাড়পত্র দিয়েছে পিসিবি।

বলা যায়, মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকেই পিসিবি এই সুযোগ দিয়েছে শোয়েব মালিককে। তাঁরা শোয়েব মালিকের প্রতি সহমর্মী। পিসিবি বলেছে, “আমরা শোয়েবের প্রতি সহমর্মী। আমরা আমাদের দায়িত্বের অংশ হিসাবে সহমর্মিতা দেখাই এবং শোয়েবের অনুরোধকে সম্মান করি। আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রায় পাঁচ মাস ধরে তাঁর নিকটতম পরিবারকে দেখেননি।”

তারা আরও বলেছে, “আমরা ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলেছি, যারা পরিস্থিতিটি বোঝে এবং তারা রাজিও হয়েছে। শোয়েবকে ২৪ জুলাই ইংল্যান্ড আসার ব্যাপারে সহায়তা করবে। যদিও ব্রিটিশ সরকারের নিয়ম মেনেই শোয়েব মালিক সেখানে যাবেন।”

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *