চিনের দখল থেকে আকসাই চিন মুক্ত করার তৎপরতা ভারতের, প্রবল চাপে বেজিং

Mysepik Webdesk: লাদাখ সীমান্তে ভারতের উত্তেজনা পরিস্থিতির মধ্যেই এবার প্রায় ৩৮ হাজার বর্গকিলোমিটার অংশ জুড়ে বিস্তৃত থাকা আকসাই চিনকে (Aksai Chin) দখলমুক্ত করতে তৎপরতা শুরু করে দিল ভারত। ভারতের এই ভূখণ্ড ১৯৬২ সালে ভারত-চিন যুদ্ধের পর থেকেই দখল করে বসে আছে চিন। লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় চিনের সামরিক শক্তি বৃদ্ধির পাশাপাশি ভারতও সামরিক শক্তি বাড়িয়েছে। ওই এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে শক্তিশালী ৯০টি ভীষ্ম ট্যাঙ্ক (Visma Tank)। সীমান্তে মাত্র ২০০০ জন জওয়ান মজুত থাকা ব্রিগেডে বর্তমানে ৪৫,০০০ সেনা মোতায়েন করেছে ভারত।

আরও পড়ুন: সীমান্তে ভারত-চিন উত্তেজনার আবহেই সেনা পাঠাচ্ছে আমেরিকা, যুদ্ধের ইঙ্গিত!

২০১৯ সালের ৫ অগস্ট লাদাখকে জম্মু-কাশ্মীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে, পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের (Union Territory) মর্যাদা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। নয়াদিল্লির এই পদক্ষেপে তীব্র আপত্তি জানিয়েছিল বেজিং। কারণ, তিব্বত থেকে জিনজিয়াং প্রদেশে যাওয়ার জন্য আকসাই হল একমাত্র মসৃণ ও প্রশস্ত রুট। যদি এই রুট কোনও ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় তাহলে চিনকে ঘুরপথে কারাকোরাম হয়ে জিনজিয়াং (Jinjiang) প্রদেশে পৌঁছতে হবে। এদিকে ভারত যদি আকসাই চিনের দখল নিতে এগোয়, তাহলে জিনজিয়াং প্রদেশের উপর থেকে চিনের দখল চলে যাওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই জিনজিয়াং প্রদেশেই উইঘুর মুসলিমদের উপর চিনা সরকারের অত্যাচারের ঘটনা কারোর অজানা নয়।

আরও পড়ুন: ত্রাণ বিলি করায় দুর্নীতির প্রমান পেলেই তাড়িয়ে দেবে দল, কঠোর অবস্থান নিল তৃণমূল কংগ্রেস

একদা জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যের লাদাখের অংশ ছিল এই আকসাই চিন। অন্যদিকে চিনের দাবি ৩৭,২৪৪ বর্গ কিলোমিটার আকসাই চিনের জিনজিয়াং প্রদেশেরই অংশ ছিল। এমনকি ভারতের অনেক রাজ্যই আকসাই -এর থেকেও ছোট। গোয়ার চেয়ে ১০ গুণ বড়, সিকিমের চেয়ে ৫ গুণ বড় এই আকসাই চিনের কবল থেকে মুক্ত করাই এখন ভারতের উদ্দেশ্য, সেটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Facebook Twitter Print Whatsapp

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *