লর্ডসে সৌরভের জয়যাত্রা শুরুর সেই দিন

Sourav 1996

ইন্দ্রজিৎ মেঘ

১৯৯৬ সালের দুর্গাপুজোর ঘটনা। বাগবাজারে ঠাকুর দেখতে গেছি বাবা-মায়ের সঙ্গে। তখনও থিমপুজোর কনসেপ্ট অত রমরমিয়ে আসেনি। তবে ঠাকুর দেখতে গেলে যে লাইন লাগে এখন, তখনও তাই লাগত। জনসমুদ্র ধীরে ধীরে বইতে লাগল প্যান্ডেল অভিমুখে। তবে মণ্ডপে ঢোকার আগে চোখে পড়ছিল লাইটিং। যা ১২ বছরের ‘আমি’টিকে বেশ আলোকিত করছিল। বাবা এক আলোর ‘আইটেম’ দেখিয়ে বলল, ”ওই দেখ…”। আমি আলোর দিকে তাকিয়ে দেখলাম, লেখা আছে, “সৌরভ বাংলার গৌরব।”

আরও পড়ুন: করোনার কাছে হার মানলেন ইরাকের ফুটবল ইতিহাসের কিংবদন্তি আহমেদ রাধি

১৯৯৬ সালের ২০ জুন। ভারতীয় দলের দুই দুর্দান্ত ব্যাটসম্যানের দেশের হয়ে টেস্ট অভিষেক ঘটে। এই দুই ব্যাটসম্যানের মধ্যে একজন ছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি এবং অন্যজন রাহুল দ্রাবিড়। এই উভয় খেলোয়াড়ই ভারতীয় দলের অধিনায়ক হয়েছিলেন। ২০ জুন টেস্টে অভিষেক হওয়া সৌরভ গাঙ্গুলির কাছে আজকের এই দিনটি বিশেষ স্মরণীয়, কারণ অভিষেক টেস্টে তিনি সেঞ্চুরি করেছিলেন ২২ জুন, আজকের দিনেই।

লর্ডসের ঐতিহাসিক গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা এই ম্যাচে রাহুল দ্রাবিড় সেঞ্চুরির পাঁচ রান আগে আউট হয়ে গেলেও তবে সৌরভ গাঙ্গুলি হাঁকিয়েছিলেন দুর্দান্ত সেঞ্চুরি। আজ সোমবার, এই ঐতিহাসিক মুহূর্তটি ২৪ বছর। অধিনায়ক মহাম্মদ আজহারউদ্দিন টসে জিতে ইংল্যান্ডকে ব্যাট করতে পাঠান। প্রথম দিন ভারতীয় দল ব্যাটিংয়ের সুযোগ পায়নি।

আরও পড়ুন: চলে গেলেন রঞ্জির সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি

তবে ম্যাচের দ্বিতীয় দিন অর্থাৎ ২১ জুন, ভারতীয় দল ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়েছিল। এরই মধ্যে তিন নম্বরে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচে মাঠে নামা সৌরভ গাঙ্গুলি সেঞ্চুরি করেছিলেন। ৩০১ বলে ২০টি চারের সাহায্যে ১৩১ রান এসেছিল তাঁর ব্যাট থেকে। নিজের প্রথম ম্যাচে সাড়ে সাত ঘণ্টা ব্যাট করেছিলেন তিনি। এই মুহূর্তের কথা মনে রেখে সৌরভ গাঙ্গুলি ২০ জুন একটি টুইট করেছিলেন।

ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক এবং বিসিসিআইয়ের বর্তমান সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি কোলাজ পোস্ট করেছেন। সেখানে তাঁর অভিষেক ম্যাচের স্মরণীয় ছবি রয়েছে। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, “আজ আমার আত্মপ্রকাশ … জীবনের সেরা মুহূর্ত।”

প্রথম ম্যাচটি যেকোনও খেলোয়াড়ের জন্য খুব বিশেষ। কিছু খেলোয়াড় তাঁদের পারফরম্যান্স দিয়ে তাঁদের অভিষেক ম্যাচকে আরও স্মরণীয় করে তুলেছেন। ২৪ বছর আগে ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি তাঁর প্রথম টেস্ট ম্যাচে সেঞ্চুরি করে ইতিহাস রচনা করেছিলেন। মোট ১৪ জন ভারতীয় এই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন। সৌরভ গাঙ্গুলি তাঁদের মধ্যে একজন। এই ম্যাচে, সৌরভের করা ১৩১ রান ছিল লর্ডসে অভিষেক টেস্টে কোনও ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রান। এরপর বাকিটা ইতিহাস। সৌরভ কেবল বাংলারই নন, গৌরব গোটা ভারতের।

প্রবাদপ্রতিম আব্রাহাম লিঙ্কন একবার বলেছিলেন, ”When I hear a man preach, I like to see him act as if he were fighting bees.” অর্থাৎ, যখন আমি একজন লোকের প্রচার শুনি, তখন আমি তাঁকে এমন আচরণ করতে দেখতে চাই যেন তিনি মৌমাছিদের সঙ্গে লড়াই করছেন। সৌরভও ঠিক তেমনই। ক্রিকেটীয় জীবন সহজ ছিল না তাঁর। ভারতকে বহু সাফল্য দিলেও। মতানৈক্য ঘটেছে অনেকের সঙ্গেই। বাদ পড়তে হয়েছে দল থেকে। আবার ফিরেছেন। আবার বাদ পড়েছেন, আবার রবার্ট ব্রুশের সেই মাকড়সার মতো লক্ষ্যে পৌঁছেছেন। লড়াইয়ের আর এক নাম সৌরভ। তিনি যখন লর্ডসের ব্যালকনিতে জার্সি ওড়াচ্ছিলেন, তা দেখে চোখে জল এসেছিল কিংবদন্তি ক্যারিবিয়ান ক্লাইভ লয়েডের। কিংবা ‘৯৬-এ যখন ছবির মতো একটার পর একটা কভার ড্রাইভ বাউন্ডারির সীমানা স্পর্শ করছে, তখনই মশলা তৈরি হয়ে যায় জেফ্রি বয়কটের মনের অভিধানে। তিনিই তো সৌরভকে বলেছিলেন, ‘প্রিন্স অব ক্যালকুটা’।

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *