গ্রামের মোড়লের বিচারে প্রায়শ্চিত্ত করতে স্বামীকে কাঁধে করে গোটা গ্রামে ঘুরলেন যুবতী

Mysepik Webdesk: অপরাধ ছিল স্বামীর ওপর রাগ করে বাপের বাড়ি চলে গিয়েছিলেন। সেই অপরাধের শাস্তি হিসেবে তীব্র গরমে চড়া রোদের মধ্যে স্বামীকে কাঁধে করে গোটা গ্রামে ঘুরে বেড়াতে হল যুবতী স্ত্রীকে। অত্যুৎসাহী গ্রামবাসীদের করুণা হয় তো দূরের কথা, উল্টে গোটা দৃশ্যের ভিডিও তুলে, তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করলেন তারা। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ঝাবুয়া জেলায়।

আরও পড়ুন: অমানবিক! গর্ভবতী মেয়েকে প্রেমিকের কাছে বিক্রি করে দিলো খোদ মা-বাবা

প্রায় এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ ছিলেন গৃহবধূ। অন্য কোথাও যান নি, স্বামীর ওপর রাগ করে সোজা বাপের বাড়ি গিয়ে উঠেছিলেন। এদিকে শশুর বাড়ির লোকেরা খোঁজ খবর নেওয়ারও প্রয়োজন বোধ করেননি। এমনকি পুলিশের কাছেও কোনও অভিযোগ জানায়নি তারা। এদিকে মেয়ের রাগ কমলে, বাবা-মা সঙ্গে করে মেয়েকে শশুর বাড়ি নিয়ে আসেন। এই সামান্য ঘটনাতেই বেঁকে বসেন শাশুড়ি। কিছুতেই তিনি বৌমাকে ঘরে ঢুকতে দিতে চান না। আগে বিচার হবে তারপর তিনি বৌমাকে ঘরে ঢুকতে দেবেন।

আরও পড়ুন: অন্ডালের কয়লাখনিতে ধস নেমে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বাড়ি

শশুড়বাড়ির বদ্ধমূল ধারণা বৌমা পরপুরুষে আসক্ত। অন্য পুরুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে বলেই স্বামীর ঘর ছেড়েছে। সেইমতো বিচার করতে হাজির হয়ে যান গ্রামের মোড়ল এবং তার সাঙ্গপাঙ্গরা। এদিকে গ্রামে বিচার হচ্ছে জানতে পেরে গ্রামের লোক জড়ো হয়ে যায় বিচার দেখার জন্য। গ্রামের মোড়ল দুপক্ষের কথা শোনা তো দূরের কথা, একতরফা বিচারে রায় দেন প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে যুবতীকে। শাস্তি স্বরূপ স্বামীকে কাঁধে চাপিয়ে গোটা গ্রাম ঘুরতে হবে। সেইমতো চাপে পরে একপ্রকার বাধ্য হয়েই তা করেন ওই যুবতী। গ্রামবাসীরা গোটা ঘটনাটির ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে।

আরও পড়ুন: ৮০ লক্ষ বছরের মৃত হাতির ফসিলস উদ্ধার উত্তর প্রদেশে

ভিডিওটি পুলিশের নজরে আসতেই ওই মোড়লের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয় এফআইআর। এই ঘটনার জন্য কল্যাণপুরা থানার অন্তর্গত মধ্যপ্রদেশের ওই গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয় চারজন অপরাধীকে। ঝাবুয়ার পুলিশসুপার বিনীত জৈন জানান, ভিডিয়ো দেখে আট জনকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। তাদের মধ্যে চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, বাকি চারজন পলাতক। তাদের খোঁজ চলছে। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, স্বামীকে কাঁধে তুলে গ্রামে ঘুরতে যথেষ্ট কষ্ট হচ্ছে ওই তরুণীর। কিন্তু তিনি থামতে পারছেন না। কোনওরকমে স্বামীকে কাঁধে তুলে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। থেমে গেলেই চারপাশ থেকে গালিগালাজ ও হুমকি ভেসে আসছে। কিন্তু গ্রামবাসীদের কেউই তার কষ্ট বুঝছে না উল্টে গোটা ঘটনার মজা নিচ্ছে।

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *