প্রবল বর্ষায় ফুঁসছে নদী, বাংলাদেশে জলবন্দি হাজার হাজার মানুষ

Mysepik Webdesk: আসাম, উত্তর পশ্চিম বঙ্গ ও মেঘালয়ে এবার প্রচুর বৃষ্টিপাতের ফলেই বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে বাংলাদেশে। একটানা বৃষ্টি আর অন্যদিকে পাহাড়ি ঢল, এই দু’এর সমন্বয়ে নদীর জল ফুলেফেঁপে উঠছে। পাশাপাশি মধ্যে-উত্তর জনপদের তিস্তা ব্যারাজের নদীর জল বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বিপদসীমা ছুঁতে চলেছে যমুনার জলস্তরও। সিলেট অঞ্চলের সুরমা ও জাদুকাটার নতুন করে জল বাড়ছে। বেড়েছে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র ও ঘাঘট নদের জলও। ইতিমধ্যেই জলের তোড়ে প্লাবিত হচ্ছে বাংলাদেশের রাস্তাঘাট। কোনো কোনো এলাকায় তলিয়ে গেছে লোকালয়। জলবন্দি হয়ে মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়েছে হাজার হাজার বাংলাদেশের মানুষ। বহু এলাকায় চাষের জমি জলের নিচে চলে গেছে, ভেসে গেছে পুকুরের মাছ।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর ভাতার ঘোষণাতেও কাটল না জট, ভাড়া বাড়ানোর দাবিতেই অনড় বাস মালিকেরা

বন্যার কারণে গত ১৩ দিনে ৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশের মোট ২৮টি জেলা বন্যার জলে প্লাবিত হয়েছে। তারমধ্যে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বন্দরবান, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নীলফামারী, লালমনিরহাট, নেত্রকোণা ও মৌলভীবাজারের বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলোর মধ্যে রয়েছে শেরপুর,জামালপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা-সহ কয়েকটি জেলা। এনডিআরসিসির সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ১৭ জেলায় এপর্যন্ত মোট ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা প্রায় ৫০ লাখ। ইতিমধ্যেই ১,৪০০০০ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে বন্যার কারণে।

Facebook Twitter Print Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *