পাকিস্তানের কোয়েটার হোটেলে বিস্ফোরণ, হত ৫

Mysepik Webdesk: বুধবার রাত ১১টা নাগাদ পাকিস্তানের কোয়েটা শহরে একটি বড়সড় বিস্ফোরণ ঘটে। কোয়েটার বৃহত্তম হোটেল সেরেনার পার্কিং লটে এই বিস্ফোরণ ঘটে। এখনও অবধি ৫ জন নিহত হয়েছেন। যে হোটেলটিতে বিস্ফোরণ হয়েছিল, সেখানে চিনা আধিকারিকরাও ছিলেন। শহরের সরকারি হাসপাতালের একজন চিকিৎসকের মতে, মৃতের সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে, কারণ আহতদের বেশিরভাগের অবস্থা আশঙ্কাজনক। সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে যে, শহরের বেশিরভাগ অংশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে, কারণ এখানে বেশ কয়েক দিন ধরে হিংসার ঘটনা ঘটছে।

পাকিস্তানের সংবাদপত্র ‘দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন’-এর খবরে বলা হয়েছে, ঘটনার সময় পার্কিংয়ে অনেক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা এখানে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে এসেছিলেন। এর মধ্যে কয়েকজন বিদেশি নাগরিকও ছিলেন। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, প্রায় ৩৩ জন আহত হয়েছে এবং তাদের বেশিরভাগের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এর কারণ হল বেশিরভাগ মানুষই একসঙ্গে ছিলেন। বিস্ফোরণের পর সুরক্ষা বাহিনী সেরেনা হোটেলে ছুটে আসে। কাউকে বিস্ফোরণস্থলের কাছে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। পুলিশ জানিয়েছে, উদ্ধারকারীরা আহতদের কাছের হাসপাতালে নিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন: টিকাকরণের ফলে বিশ্বে করোনায় মৃত্যুহার কম হয়েছে, দৃষ্টান্ত স্থাপন ইংল্যান্ডের

ছবি এপি

বেলুচিস্তানে দীর্ঘদিন ধরেই স্বাধীনতার দাবি উঠছিল। বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলি এখানে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর পোস্টগুলিতে আক্রমণ করে এবং সেখানে অনেক সেনা নিহত হয়। সাম্প্রতিক সময়ে এখানে রেঞ্জার্স এবং বিশেষ ব্যাটালিয়নও মোতায়েন করা হয়েছে। তবুও হিংসার ঘটনা শুধরায়নি।

বিস্ফোরণে সাতটি গাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে যায়। যদিও এখনও স্পষ্ট হয়নি যে, এটা বম্ব ব্লাস্ট ছিল নাকি অন্য কিছু। বেলুচিস্তান সরকার বিস্ফোরণের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছে যে, মৃতের সংখ্যা ছিল ৪ জন। সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এটি সন্ত্রাসবাদী হামলা বা অন্য কিছু কি না, তা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদও এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, “আমরা বিষয়টির গভীরে যাওয়ার চেষ্টা করব। সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় পুরো দেশ ঐক্যবদ্ধ।”

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *