ধর্মীয় অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ জন যোগদানের অনুমতি

Mysepik Webdesk: করোনার লাগামহীন সংক্রমণে জেরবার গোটা দেশ। করোনার সংক্রমণ রুখতে ইতিমধ্যেই একাধিক রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের অবস্থাও তথৈবচ। এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছিলেন, সাধারণ মানুষের রুজিরোজগারের কথা ভেবে সম্পূর্ণ লকডাউন করা হবে না রাজ্যে। তবে বেশকিছু ক্ষেত্রে করা হবে কড়াকড়ি। এবার ঈদের মুখে ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে বেশ কিছু ছাড় দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন: ‘যতদিন বেঁচে থাকব মমতাকে শ্রদ্ধা করব’, রাজীবের মন্তব্য কি তৃণমূলে ফেরার ইঙ্গিত

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, যেকোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ জনের উপস্থিতিতে সেই অনুষ্ঠান করা যাবে। সোমবার মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন নয়, তবে লকডাউনের মতো কড়া বিধি জারি করা প্রয়োজন। লকডাউনের মতো ব্যবহার করতে হবে আমাদের। সম্পূর্ণ লকডাউন করে দিলে লোকে খেতে পাবে না। সকলকে কোভিড নির্দেশ কড়া ভাবে মেনে চলতে হবে। এবার কোভিড বেশি হচ্ছে, সংক্রমণের হারও বেশি।”

আরও পড়ুন: বাংলা থেকে অক্সিজেন অন্য রাজ্যে যাচ্ছে কেন, মোদিকে প্রশ্ন মমতার

ইতিমধ্যে রাজ্যে ১৪ দিনের জন্যে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে লোকাল ট্রেন। রাস্তায় বাসের সংখ্যা এবং মেট্রো রেলের সংখ্যা অর্ধেক করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও জিম, স্পোর্টস কমপ্লেক্স, সিনেমা হল, রেস্তরাঁ, বার অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। বাজার, দোকানপাট খোলা ও বন্ধের ক্ষেত্রেও বেঁধে দেওয়া হয়েছে সময়। তাছাড়াও এবার এদের দিনে কলকাতার রেডরোডে ইদের নমাজ পাঠের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *