ধর্ষণের পর খুন ন’বছরের শিশুকন্যাকে, গ্রেফতার দিল্লির এক পুরোহিত

Mysepik Webdesk: বাড়ির উল্টোদিকে শ্মশানের কুলার থেকে ঠান্ডা জল আনতে গিয়ে ওই শ্মশানের পুরোহিত ও তার শাগরেদের হাতে ধর্ষিতা হল এক ন’বছরের শিশুকন্যা। নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির নাঙ্গেলি গ্রাম এলাকায়। ইতিমধ্যেই ওই শিশুকন্যাকে ধর্ষণ ও পরে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে ওই শ্মশানের পুরোহিত ও তার তিন শাগরেদকে। অপরাধ প্রমাণিত হলে তাদের যথাযথ শাস্তির ব্যবস্থা করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের উচ্চস্তর থেকে। এই ঘটনায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন স্থানীয় গ্রামবাসীরা।

আরও পড়ুন: মাত্র দেড় বছরেই ত্রিপুরায় উন্নয়নের সরকার গড়ার চ্যালেঞ্জ জানালেন অভিষেক

শিশুটির পরিবার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, রবিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ওই শিশুটি বাড়ির উল্টোদিকে অবস্থিত একটি শ্মশানের কুলার থেকে ঠান্ডা জল আনতে গিয়েছিল। সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ শ্মশানের পুরোহিত রাধেশ্যাম ও তার তিন সাগরেদ পরিবারকে জানায়, ঠান্ডা জল ভোরের সময় বিদ্যুতপৃষ্ঠ হয়ে মৃত্যু হয়েছে তার। পরিবারকে আরও বোঝানো হয়, এর জন্য পুলিশকে খবর দেওয়ার কোনও দরকার নেই। কারণ, পুলিশ এলেই ময়না তদন্ত হবে আর তাতে মেয়েটির শরীর থেকে সমস্ত অঙ্গ তারা বার করে নেবে। সুতরাং কাউকে না জানিয়ে দেহটি দাহ করে দেওয়াই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। এর পরেই পরিবারের লোকজন পুরোহিতের কথায় মেয়েটির দেহ দাহ করে।

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই করোনার তৃতীয় ঢেউ! দৈনিক এক লক্ষ আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা

এদিকে ঘটনার কথা জানাজানি হতেই শ্মশানে পৌঁছে যায় গ্রামবাসীরা। ততক্ষনে পুলিশের কাছেও খবর পৌঁছে যায়। পুলিশের বিশাল বাহিনী এসে পৌঁছে যায় শ্মশানে। শিশুটির মা জানিয়েছেন, তিনি যখন প্রথম মেয়েকে মৃত অবস্থায় দেখেন, তখন মেয়েটির কনুইয়ের কাছে পোড়া দাগ ছিল। ঠোঁটের রংও নীল হয়ে গিয়েছিল। এরপরেই পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই পুরোহিত ও তার তিন সাগরেদকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের বিরুদ্ধে পকসো-সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। তদন্তের জন্য ঘটনাস্থল থেকে একাধিক নমুনা সংগ্রহ করেছেন ফরেনসিক অধিকারীরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *