ইডির দপ্তরের উদ্দেশ্যে দিল্লি রওনা দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

Mysepik Webdesk: কয়লাকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি তার স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও দিল্লি তলব করেছিলেন ইডির অধিকারিকরা। কিন্তু গত বুধবার রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, করোনা এডহের মধ্যে তাঁর পক্ষে দুই শিশুকে নিয়ে দিল্লি যাওয়া সম্ভব নয়, সেক্ষেত্রে ইডির আধিকারিকরা চাইলে তাঁকে কলকাতায় এসে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন। ই-মেলের মাধ্যমে তিনি তাঁর এই বার্তা পৌঁছে দিয়েছিলেন ইডির দপ্তরে।

আরও পড়ুন: বর্ষীয়ান সাংবাদিক এবং রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্রের জীবনাবসান

কিন্তু তখন জানা যায়নি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ইডির প্রশ্নের মুখোমুখি হতে দিল্লি যাবেন কিনা। তবে, আগামীকাল অর্থাৎ সোমবার তিনি নয়াদিল্লিতে ইডির জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে চলেছেন। সেই কারণেই তিনি রবিবার নয়াদিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। অর্থাৎ সোমবার তিনি যে ইডি আধিকারিকদের মুখোমুখি হতে চলেছেন, এদিন তা মোটামুটি স্পষ্ট হয়ে গেল।

আরও পড়ুন: দুই সন্তানকে নিয়ে দিল্লি যাওয়া সম্ভব নয়, ইডিকে ই-মেলের মাধ্যমে জানালেন অভিষেকপত্নী

প্রসঙ্গত, কয়লা কাণ্ডে সস্ত্রীক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরার জন্য দিল্লি তলব করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সেই কারণেই চিঠি দিয়ে তাঁদের দিল্লিতে হাজিরা দেওয়ার কথা জানানো হয়। সেই কারণেই বুধবার ১ সেপ্টেম্বর রুজিরা এবং শুক্রবার ৩ সেপ্টেম্বর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লির ইডি দপ্তরে হাজিরা দিতে বলা হয়। এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, রাজনীতি করতে গেলে সেটা রাজনীতি করার মতই করা উচিত। রাজনীতিতে পেরে না উঠলেই দিল্লি এভাবে নিজেদের এজেন্সি লেলিয়ে দেয়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সিবিআই, ইডি দেখিয়ে তৃণমূলের জয়যাত্রাকে রাখা যাবে না। আগামী দিনে তৃণমূলের লড়াই আরও বড় হতে চলেছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *