মাত্র দেড় বছরেই ত্রিপুরায় উন্নয়নের সরকার গড়ার চ্যালেঞ্জ জানালেন অভিষেক

Mysepik Webdesk: সোমবার ত্রিপুরা সফরে এসে বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কালো পতাকা, গো-ব্যাক স্লোগানের পাশাপাশি তাঁর কনভয়ের গাড়িতে বাঁশ দিয়েও আঘাত করা হয়। টুইট করে তিনি সেই ভিডিও প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু পিছিয়ে যাওয়ার ব্যক্তি তিনি নন। ত্রিপুরা থেকে সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি রীতিমতো হুমকি দিলেন সেখানকার বিজেপি সরকারকে। জানালেন, “আজ এখানে পা দিলাম। আগামী দেড় বছরের মধ্যেই এই ত্রিপুরায় উন্নয়নের সরকার গড়ে দেখিয়ে দেব, কথা দিলাম।”

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই করোনার তৃতীয় ঢেউ! দৈনিক এক লক্ষ আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা

সাংবাদিক বৈঠকে অভিষেক আরও বলেন, “আমি ত্রিপুরায় প্রথমবার এসে মায়ের কাছে পুজো দিয়ে এখানকার কর্মসূচি শুরু করতে চেয়েছিলাম। শুধু ত্রিপুরায় নয়, সারা ভারতবর্ষে প্রসিদ্ধ মা ত্রিপুরেশ্বরী। সেই মায়ের পুজো দিতে আমাকে বাধা দেওয়া হয়েছে। বিজেপি নিজেদেরকে হিন্দু ধর্মের ধারক ও বাহক বলে দাবি করলেও সেই বিজেপিই আমায় পুজো দিতে বাধা দেওয়ার কোনও কসুর করেনি। ১০০ মিটার অন্তর অন্তর আমার পথ অবরোধ করা হয়েছে। লাঠি, লোহার রড দিয়ে মারা হয়েছে গাড়িতে। সবরকম চেষ্টা করা হয়েছে যাতে মায়ের দর্শন করতে না পারি। কিন্তু, তৃণমূলকে যত তাতাবে, তত জেদ বাড়বে। লোহার মত শক্ত আমাদের দল। আমাদের সিপিএম ভাবলে ভুল করবে ওরা।

আরও পড়ুন: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি ত্রিপুরায় আক্রান্ত সুদীপ-দেবাংশুও

এদিন ত্রিপুরা থেকে অভিষেক আরও বলেন, “আজ এখানে আমি পুজো দিয়ে ত্রিপুরায় আমাদের পথ চলা শুরু করলাম। ত্রিপুরায় এসে, অতিথি দেব ভবঃ -র নামে বিজেপি সরকার যা যা করেছেন তার ভিডিও পোস্ট করেছি। আপনারা সে সব দেখেছেন। তবে আমি আজ দায়িত্ব নিয়ে বলছি, আমাদের এসব যত করবেন, তত ত্রিপুরায় বিজেপির সূর্যোদয় ঘটবে। ত্রিপুরার মানুষকে স্বাধীন করবই। আপনারা আজকের তারিখ লিখে রাখুন। আগামী দেড় বছরে আমাদের সরকার প্রতিষ্ঠা করে উন্নয়ন পৌছে দেব ত্রিপুরায়। আমাদের রাজ্যে দুয়ারে সরকার প্রকল্প চলছে আর এখানে হচ্ছে দুয়ারে গুন্ডা। এই ত্রিপুরার হৃত গৌরব পুনরুদ্ধার করবই। বিপ্লব বাবুর ক্ষমতা থাকলে আটকে দেখাক।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *