#AbkiBaarDidiSarkar দিল্লিতে মমতা পা রাখতেই তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা ব্যবহার করলেন এই হ্যাসট্যাগ

Mysepik Webdesk: পাখির চোখ দিল্লি দখল, কেন্দ্রের ক্ষমতা থেকে উৎখাত করা বিজেপিকে। সেই উদ্দেশ্যেই এদিন দিল্লির মাটিতে পা রাখলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দিল্লি সফরের উদ্দেশ্য একটাই, ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনে সমস্ত বিজেপি বিরোধী শক্তিগুলিকে একত্রিত করে প্রবল বিক্রমে ঝাঁপিয়ে পড়া বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে। সেই কারণেই দিল্লি সফরের আগে থেকেই তিনি দেশের বিজেপি বিরোধী নেতা-মন্ত্রীদের আহ্বান জানিয়েছিলেন। এদিন রাজধানীতে পা রাখতেই টুইটারে তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা ব্যবহার করলেন #AbkiBaarDidiSarkar হ্যাসট্যাগ।

আরও পড়ুন: কৃষকরাই অন্নদাতা, ট্রাক্টর চালিয়ে সংসদ অধিবেশনে যোগ দিলেন রাহুল গান্ধী

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে নরেন্দ্র মোদির হয়ে বিজেপি একইভাবে প্রচার চালিয়েছিল। এবার বিজেপির অস্ত্রেই বিজেপিকে ঘায়েল করতে তৎপর হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লি পৌঁছাতেই দলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী-বিধায়কেরা বাংলার একাধিক প্রকল্পের সুফলকে গোটা দেশে ছড়িয়ে দিতে টুইটারে #AbkiBaarDidiSarkar হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করলেন। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা রাজনৈতিকভাবে যথেষ্টই তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনীতিবিদরা। কারণ, বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়াই হল এমন একটি মাধ্যম যা রাতারাতি বদলে দিতে পারে অনেক কিছুই।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে পালস অক্সিমিটার-সহ অন্যান্য চিকিৎসা সরঞ্জামের দাম কমল

এদিকে একাধিক অবিজেপি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ফোনে আড়ি পাতা পেগাসাস স্পাইওয়্যার, অন্যদিকে শরদ পাওয়ারের মতো ব্যক্তিত্বের সঙ্গে প্রশান্ত কিশোরের বৈঠক, এ সবকিছুই সম্প্রতি বিরোধী দলগুলিকে যেন নতুন করে অক্সিজেন যোগান দিয়েছে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে একজোট হতে। পাশাপাশি কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ছাড়া পেগাসাস নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি যে দলটি সোচ্চার হয়েছে, তা হল তৃণমূল কংগ্রেস। কারণ, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত কিশোরের মতো হেভিওয়েট ব্যক্তিত্বদের মোবাইল ফোন হ্যাক করার অভিযোগ উঠেছে। অর্থ্যাৎ মমতার দিল্লি সফরের উদ্দেশ্য একটাই, আগামী ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে বাড়াতে হবে কেন্দ্রের ওপর। সেক্ষেত্রে সমচেয়ে বেশি প্রয়োজন বিজেপি বিরোধী সুর চড়ানো।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *