মাত্র ৫৮ বছর বয়সে চলে গেলেন অভিনেতা রাজীব কাপুর

Mysepik Webdesk: অভিনেতা রণধীর কাপুর ও ঋষি কাপুরের ছোট ভাই রাজীব কাপুর প্রয়াত হয়েছেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। হার্ট অ্যাটাকের কারণে তাঁর মৃত্যু হয়। চেম্বুরের বাড়িতে তিনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন। এরপর রণবীর কাপুর সহ পরিবারের সদস্যরা তাঁকে নিয়ে তড়িঘড়ি ইনল্যাক্স হাসপাতালে যান। সেখানে চিকিৎসকরা রাজীব কাপুরকে মৃত ঘোষণা করেন।

আর পড়ুন: প্রয়াত হলেন অস্কার বিজয়ী ক্রিস্টোফার প্লামার, হলিউডে শোকের ছায়া

এক শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে রণধীর কাপুর বলেন, “বাড়িতে হার্ট অ্যাটাকের পরে তাকে চেম্বুরের ইনল্যাক্স হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, তবে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে তাঁকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেছিলেন। দুঃখের বিষয়, আমরা তাঁকে বাঁচাতে পারিনি আমরা। আজ সন্ধ্যায় চেম্বুরের শ্মশানে তাঁর শেষকৃত্য করা হবে।”

আরও পড়ুন: ‘কেজিএফ-চ্যাপ্টার টু’ মুক্তির দিনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সরকারি ছুটির দাবি

গতবছরই ঋষি কাপুর ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। পরিবার সেই দুঃখ থেকেও বেরিয়ে আসতে পারেনি। এখন আবার কাপুর পরিবারের আরও এক সদস্য অনন্তলোক যাত্রা করেছেন। ঋষি কাপুরের স্ত্রী নিতু কাপুর একটি ছবি শেয়ার করে এই খবরটি নিশ্চিত করেছেন। রাজীব কাপুরের বাবা ছিলেন রাজ কাপুর। রাজ কাপুরের তিন ছেলেি― ঋষি কাপুর, রণধীর কাপুর এবং রাজীব কাপুর। ঋষি কাপুর ১৯৮০ সালে তাঁর বন্ধু নিতু সিংকে বিয়ে করেছিলেন। দু’জনেই একসঙ্গে অনেক ছবিতে কাজ করেছেন। রণবীর কাপুর এবং ঋদ্ধিমা কাপুরে দুই সন্তান রয়েছে। ঋষি কাপুর গতবছর লকডাউনের সময় মারা গিয়েছিলেন। ১৯৭১ সালে রাজ কাপুরের দ্বিতীয় ছেলে রণধীর কাপুর ববিতাকে বিয়ে করেছিলেন। কারিশ্মা কাপুর এবং কারিনা কাপুর তাঁদের কন্যা। রাজ কাপুরের তৃতীয় পুত্র রাজীব কাপুর ২০০১ সালে আর্কিটেক আরতি সবরওয়ালের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। পরে দু’জনের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়। রাজীব কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেও বিশেষ পরিচয় পাননি।

রাজীব কাপুর ছিলেন একজন অভিনেতা, প্রযোজক ও পরিচালক ছিলেন। তিনি ১৯৮৩ সালে এক জান হে হাম চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। রাম তেরে গঙ্গা মাইলি ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা গেছে তাঁকে। এ ছাড়াও তিনি আরও অনেক আকাশ (১৯৮৪), লাভার বয় (১৯৮৫), জাব্রিতি (১৯৮৫) এবং হাম তু চালে পরদেশ (১৯৮৮)-এ অভিনয় করেছিলেন। রাজীব কাপুর প্রযোজিত চলচ্চিত্রগুলির মধ্যে রয়েছে আ আব লট চলে (১৯৯৯), প্রেমগ্রন্থ (১৯৯৬) এবং হেনা (১৯৯১)। তাঁর মৃত্যুর খবর শুনে বলিউডে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *