Latest News

Popular Posts

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর রাহুল গান্ধীকে লখিমপুর যাওয়ার অনুমতি দিল ইউপি প্রশাসন

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর রাহুল গান্ধীকে লখিমপুর যাওয়ার অনুমতি দিল ইউপি প্রশাসন

Mysepik Webdesk: লখিমপুর যাওয়ার অনুমতি পাননি কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। কেন যেতে দেওয়া হবে না, এই নিয়ে পুলিশের সঙ্গে তর্কাতর্কির পর গ্রেফতার হয়েছেন তিনি। কিন্তু বুধবার লখিমপুরের ঘটনাস্থলে যাওয়ার অনুমতি পেলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। পাশাপাশি কংগ্রেসের আরও চার নেতৃত্ব লখিমপুরে যাওয়ার অনুমতি পেল। কিছুক্ষন আগেই লখনউ যাওয়ার বিমানে যাত্রা শুরু করেছেন রাহুল। তাঁর সঙ্গে রয়েছেন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল ও পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ চান্নি।

আরও পড়ুন: লখিমপুরের ঘটনা পরিকল্পিত, ব্যাখ্যা রাহুল গান্ধীর

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশের লখিমপুরে কৃষক আন্দোলন চলাকালীন জিপের চাকায় পিষ্ট হয়ে চার কৃষকের মৃত্যু হয়। অভিযোগের তীর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রর ছেলে আকাশ মিশ্রর দিকে। মৃত ওই চার কৃষকের নাম দলজিৎ সিং, লভপ্রীৎ সিং, নক্ষত্র সিং ও গুরবিন্দ্র সিং। এরপরেই একের পর এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে লখিমপুরে। এখনও পর্যন্ত লখিমপুরে ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। কৃষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে গতকাল এলাকায় পৌঁছতে গেলে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি এবং সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদবকে আটক করে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ডিভিসির জল ছাড়া নিয়ে ফের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রথমে মনে করা হয়েছিল প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর মতোই লখিমপুর যাওয়ার অনুমতি পাবেন না রাহুল গান্ধী। কিন্তু মঙ্গলবার কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি লখিমপুরের ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যে আনার পরেই তুলনামূলক নরম মনোভাব প্রকাশ করে উত্তর প্রদেশ পুলিশ। বেজায় অস্বস্তিতে পড়ে যায় যোগী প্রশাসন। এছাড়াও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এদিন ফোনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরেই উত্তরপ্রদেশের স্বরাষ্ট্র দপ্তরের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয় রাহুল-প্রিয়াঙ্কা ও আরও তিনজনকে লখিমপুর খেরিতে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *