সোমবারের পরে আজ আরও এক দফায় ৪ লক্ষ ভ্যাকসিন আসছে রাজ্যে

Mysepik Webdesk: গত সোমবার রাজ্যে তিন লক্ষ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন রাজ্যে এসে পৌঁছেছে। ফের আরও একদফায় বুধবার দুপুরের মধ্যেই রাজ্যে আসতে চলেছে ৪ লক্ষ ভ্যাকসিন। ওই ভ্যাকসিনগুলি এয়ারপোর্ট থেকে সোজা চলে আসবে বাগবাজারে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের স্টোরে। সেখানে নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ভ্যাকসিনের ডোজগুলি সংরক্ষণ করা হবে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে ওই ভ্যাকসিনগুলিকে সংরক্ষণ করার তৎপরতা শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: বাংলা কল্পবিজ্ঞান জগতে নক্ষত্রপতন, করোনায় প্রয়াত লেখক অনীশ দেব

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তেই পশ্চিমবঙ্গে দেখা দিয়েছে ভ্যাকসিনের আকাল। যাঁদের ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটি দেওয়া হয়েছিল, আদৌ তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া সম্ভব হবে কিনা, সেই নিয়ে রীতিমতো আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর। তবে দু’দফায় রাজ্যে ৭ লক্ষ ডোজের ভ্যাকসিন আসার ফলে কিছুটা হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীরা। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর চলতি সপ্তাহে আরও কয়েক লক্ষ ভ্যাকসিন রাজ্যে এসে পৌঁছাবে।

আরও পড়ুন: ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল অসম-উত্তরবঙ্গ

এদিকে রাজ্যজুড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এর ফলে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন প্রায় সকলেই। তার জন্য বাড়ছে চাহিদা। শুধু তাই নয়, অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার সময় পর্যাপ্ত পরিমান ভ্যাকসিনের যোগান নেই। অনেকেই আবার ভ্যাকসিনের জন্য দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়েও ভ্যাকসিন পাচ্ছেন না। পরিবর্তে তাঁদের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হচ্ছে কুপন। অন্যদিন তাঁদের আসতে বলা হচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে এই দৃশ্য শুধুমাত্র কলকাতায় নয়, দেখা গিয়েছে জেলাগুলিতেও। তবে চলতি সপ্তাহে ফের ভ্যাকসিনের যোগান হওয়ায় এই সমস্যা কিছুটা হলেও মিটবে বলেই মনে করছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *