রাতারাতি জারি হয়নি কৃষি আইন, পিছনে রয়েছে ২০ বছরের চিন্তাভাবনা

Mysepik Webdesk: শুক্রবার মধ্য প্রদেশের কৃষকদের উদ্দেশে ভার্চুয়াল ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দাবি করলেন, কৃষি আইন রাতারাতি তৈরি হয়নি। দীর্ঘ ২০ বছর ধরে চিন্তাভাবনা ও আলোচনা করেই করা হয়েছে এই আইন। তাঁর দাবি, বছরের পর বছর ধরে কৃষকদের আটকে থাকা দাবিকে প্রাধান্যতা দিতেই এই আইন আনা হয়েছে। তাঁর কথায়, “বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলি যখন নতুন নতুন প্রযুক্তি প্রয়োগ করছে তখন ভারতের কৃষকরা পিছিয়ে পড়তে পারেন না। এখন কৃষি আইন নিয়ে বিস্তর কথা হচ্ছে। এ সব আরও আগে হওয়া দরকার ছিল। আর এই আইনগুলি রাতারাতি চালু করা হয়নি। আমাদের কৃষকরা এই দাবিগুলি কয়েক দশক ধরে জানিয়ে আসছেন। আজ যদি আমরা রাজনৈতিক দলগুলির পুরনো ম্যানিফেস্টো দেখি, তা হলে এই প্রতিশ্রুতিগুলিই দেখতে পাব।”

আরও পড়ুন: এই পদ্ধতিতে খুব সহজেই আধার কার্ডের মাধ্যমে বানিয়ে ফেলুন প্যান কার্ড

তাঁর বক্তব্যে তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে বলেন, “আমার মনে হয় না কৃষি সংস্কার নিয়ে ওদের মাথাব্যথা রয়েছে। ওদের সমস্যা হচ্ছে, এতদিন যে সব ভুরি ভুরি প্রতিশ্রুতি ওরা দিয়েছে, আজ সেটাই পূরণ করছেন মোদী। সব রাজনৈতিক দলের প্রতি আমার জোড়হাতে অনুরোধ, দয়া করে সব বাহবা আপনারাই নিন। আমি ওঁদের ইশতেহারকেই যাবতীয় বাহবা দিতে চাই। গত ছয় বছর ধরে আমাদের সরকার কৃষকদের প্রতিটি প্রয়োজনকে মাথায় রেখে কাজ করেছে। কম-বেশি সমস্ত সংগঠন এই আইন নিয়ে বহু পরামর্শ দিয়েছে। দেশের কৃষক, কৃষক সংগঠন, কৃষি এক্সপার্ট, কৃষি অর্থশাস্ত্রী, কৃষি বৈজ্ঞানিকরা কৃষি ক্ষেত্রে সংশোধনের দাবি করে আসছে।”

আরও পড়ুন: কেরলে পুর-পঞ্চায়েত ভোটে উড়ল লাল নিশান, বড় জয় বামেদের

PM Narendra Modi addresses nation through 'Mann ki Baat': 5 key points

প্রধানমন্ত্রীর কথায়, “নতুন আইনে একটি মণ্ডিও বন্ধ হয়নি। তাহলে কেনও এরকম ভুয়ো খবর ছড়ানো হচ্ছে? প্রকৃত সত্য হল আমাদের সরকার APMC কে আধুনিক বানাতে, কম্পিউটারাইজেশন করতে ৫০০ কোটির বেশি খরচ করেছে। তাহলে APMC বন্ধ করার কথা কোথা থেকে আসছে? কংগ্রেসকে নিশানা করে তিনি বলেন, “আপনারাই ভালো জানেন, মধ্য প্রদেশের কৃষকদের ঋণ মকুব করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আপনারা সবাই কি সেই সুবিধা পেয়েছেন? বিরোধীরা ক্ষমতায় থাকার সময় স্বামীনাথন কমিশনের রিপোর্ট আবর্জনার স্তূপে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। আমরা সেখান থেকে তা উদ্ধার করে এনে কাজে লাগিয়েছি।”

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *