বিজেপি কর্মীর উপর হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

Mysepik Webdesk: মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি থানার অন্তর্গত গোবরহাটি গ্রামের বিজেপি বুথ সভাপতির ভাই রামকৃষ্ণ হাজরাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠল কান্দি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কলুলি রাজবংশী ও তার স্বামী দিবাকর রাজবংশীর বিরুদ্ধে। আক্রান্তের পরিবার জানিয়েছেন, শুক্রবার রাত্রে বিজেপি কর্মী রামকৃষ্ণ হাজরার বাড়িতে কান্দি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কাকলি রাজবংশীর স্বামী দিবাকর রাজবংশীর নেতৃত্বে তৃণমূলের কয়েক জন দুষ্কৃতী রামকৃষ্ণ হাজরার বাড়িতে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ। এর প্রতিবাদ করায় রামকৃষ্ণ হাজরার স্ত্রী তাপসী হাজরাকে বাঁধ দেওয়ার চেষ্টা করে এবং রামকৃষ্ণ হাজরার পায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে তৃণমূল কর্মীরা।

আরও পড়ুন: এখনই বৃষ্টি থেকে মিলছে না রেহাই, বঙ্গোপসাগরে ঘনাচ্ছে গভীর নিম্নচাপ

এলাকার বুথ সভাপতি তথা আক্রান্তের দাদা সুদীপ হাজরা দাবি করেন, তারা যেহেতু বিজেপি করে তার জন্যই তাদের উপর হামলা চালায় তৃণমূলের হার্মাদ বাহিনি। আক্রান্ত রামকৃষ্ণ হাজরা স্ত্রী তাপসি হাজরা ন্যায্য বিচারের আশায় কান্দি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। বর্তমানে আক্রান্ত রামকৃষ্ণ হাজরা কান্দি মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কান্দি থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে এই ঘটনার পর কান্দি বিধানসভা কেন্দ্রের শাসক দলের বিধায়ক অপূর্ব সরকার পাল্টা দাবি করেন, বিজেপি কর্মী রামকৃষ্ণ হাজরা মদ্যপ অবস্থায় কান্দি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কাকলি রাজবংশীর স্বামী দিবাকর রাজবংশীকে ধাক্কাধাক্কি করে এবং নিজেদের মধ্যে ইট ছড়াছড়ি করে সেই ইট ছড়াছড়িতে জখম হন বিজেপি কর্মী রামকৃষ্ণ হাজরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তৃণমূলের নামে দোষ চাপাচ্ছে বিজেপি, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল কোনোভাবেই জড়িত নয় বলে দাবি করেন বিধায়ক অপূর্ব সরকার।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *