আমন্ডের মধ্যেই রয়েছে সুস্থ থাকার চাবিকাঠি, রোজ একটু করে খেলে বার বার ছুটতে হবে না ডাক্তারের কাছে

Mysepik Webdesk: হৃদযন্ত্র সুস্থ রাখতে আমন্ডের জুড়ি মেলা ভার। তাই, চিকিৎসকরা বার বার জানিয়ে এসেছেন, প্রতিদিন নিয়ম করে সকালে আমন্ড বাদাম খেলে আর আপনাকে হার্টের রোগের চিন্তা করতে হবে না। বার বার ছুটতে হবে না হার্টের ডাক্তারের কাছে। শুধু চিকিৎসকরাই নয়, সাম্প্রতিক সমীক্ষা বলছে নিয়মিত আমন্ড খেলে প্রায় ৯০ শতাংশ দূরে রাখা যায় হার্টের রোগকে। তবে রোজ আমন্ড খাওয়া ভাল বলে আপনি সেটা ইচ্ছামতো খেতে পারেননা। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের ক্ষেত্রে একেবারে মেপে রোজ আপনাকে ৪২.৫ গ্রাম আমন্ড খেতে হবে। এর বেশি নয় কিন্তু। এতে আবার হার্ট সুস্থ থাকার পরিবর্তে হার্টের ওপর অধিক চাপ পড়বে।

আরও পড়ুন: পুজোয় যত খুশি ভূরিভোজ করুন, সুস্থ থাকার জন্য রইল টিপস

সম্প্রতি একদল মার্কিন চিকিৎসক এই বিষয়ে একটি সমীক্ষা করেছিলেন। তাঁরা সেই সমীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশ্যে এনেছিলেন যা দেখে সত্যিই অবাক হয়ে যেতে হয়। সমীক্ষাটি করা হয়েছিল আমন্ড বোর্ড অফ ক্যালিফোর্নিয়ার তত্ত্বাবধানে। সেই সমীক্ষায় তাঁরা কিছু সংখ্যক মানুষকে দুটি দলে ভাগ করেছিলেন। তাদের মধ্যে কিছুজনকে মেপে রোজ ৪২.৫ গ্রাম করে আমন্ড খেতে দেওয়া হয়েছিল। আর বাকিজনকে আমন্ড খেতে দেওয়া হয়নি। একমাস পরে দেখা গিয়েছে যাঁরা নিয়ম করে রোজ আমন্ড খেয়েছেন, তাঁদের হৃদযন্ত্র বাকিদের তুলনায় অনেক সুস্থ রয়েছে।

আরও পড়ুন: পুজোর দিনগুলোতে বাইরে খাওয়া দাওয়ার ব্যাপারে কি বলছেন বিশেষজ্ঞেরা? জেনে নিন

এই সমীক্ষা করে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আমন্ডে রয়েছে লো ডেনসিটি লাইপো-প্রোটিন, যা হৃদযন্ত্রের কোলেস্টেরলকে কমিয়ে হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করেছে। এর ফলে তাঁদের হৃদযন্ত্রের কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজের সম্ভাবনাও কমে গিয়েছে। কিন্তু যাঁরা নিয়মিত আমন্ড খাননি, কিংবা একেবারেই খাননি, তাঁদের হৃদযন্ত্রের উপরে ব্যস্ত জীবনযাত্রা, অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাসের দরুন চাপ পড়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *