Latest News

Popular Posts

মস্কো উশু চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতে অনন্যা কাশ্মীরি-কন্যা সাদিয়া তারিক

মস্কো উশু চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতে অনন্যা কাশ্মীরি-কন্যা সাদিয়া তারিক

Mysepik Webdesk: দেশের হয়ে সোনা জিতেছেন ভারতীয় উশু খেলোয়াড় কাশ্মীরি-কন্যা সাদিয়া তারিক। শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে তিনি এই কৃতিত্ব অর্জন করেন। ফাইনালে তাঁর কাছে পরাস্ত হন এক রাশিয়ান। শ্রীনগরের বাসিন্দা ১৫ বছর বয়সি সাদিয়া গত দু-বছর ধরে জুনিয়র ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন। তবে সাদিয়া তারিকের সাফল্যের যাত্রা সহজ ছিল না। মেয়ে বলে বাধা এসেছিল। তাঁর বাবা পাড়া-প্রতিবেশীরা বলতে লাগলেন, মেয়েদের কেউ খেলায়! তাও আবার উশুর মতো খেলায়। কিন্তু সাদিয়া তাঁদের ভুল প্রমাণ করে বলেন, “আমি মেয়ে হয়েও লড়তে পারি।”

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইটওয়াশ ভারতের

উশু একটি ফাইটিং গেম। সাদিয়ার বাবা তারিক লোন শ্রীনগরের একটি মিডিয়া গ্রুপের ক্যামেরাম্যান। একটি নিউজ ওয়েবসাইটকে তিনি বলেন, “সাদিয়া যখন আমাকে এই গেমে ওর আগ্রহের কথা বলে, আমার খুব অদ্ভুত লেগেছিল। কারণ ও এমন একটা পরিবেশ খেলতে চেয়েছিল, যেখানে মেয়েদের খেলার কথা কেউ ভাবতেও পারত না। অনেকেই বলতেন, ও মেয়ে! ওকে খেলোয়াড় তৈরি করে কী হবে!”

আরও পড়ুন: রাশিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলবে না পোল্যান্ড, সুইডেন

তিনি আরও বলেন, “কিন্তু আমি আমার মেয়েকে সাপোর্ট করে গেছি। মেয়ের প্রতি বিশ্বাস ছিল। জানতাম, ওর সঙ্গে থাকলে একদিন ও অবশ্যই দেশের হয়ে সাফল্য নিয়ে আসবে।” তারিক লোনের কথায়, সাদিয়া তাঁর দেশের জন্য স্বর্ণপদক জিতেছেন। তিনি চান, জম্মু ও কাশ্মীরের এমন ছেলেমেয়েরা আছে, যারা অন্যায় কাজে জড়িয়ে পড়ে। তারা সেই কাজগুলো ছেড়ে দিলে অনেক উন্নতি করবে এবং অনেক স্বর্ণপদক জিতবে। তাদের বাবা-মায়ের সম্মানও বাড়বে। শুধু কাশ্মীর নয়, দেশের নামও উজ্জ্বল হবে।

আরও পড়ুন: ‘প্রেসিডেন্টে’র পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল পুতিনকে

সাদিয়ার সাফল্যে তাঁর বাবারও অনেক অবদান আছে। সাদিয়ার সাফল্যের পথে আসা বাধা সম্পর্কে তিনি বলেন, “সাদিয়া যখন ক্লাস থ্রিতে পড়ে, তখন থেকেই খেলছে। কিন্তু একটি মেয়ের জন্য সবচেয়ে কঠিন কাজ হল ঘর ছেড়ে যাওয়া। আমি সব সময় ওর সঙ্গে ছিলাম।” তিনি বলেন, “প্রথম দিকে ট্রেনিংয়েও সমস্যা ছিল। কিন্তু এখন সাদিয়ার সাফল্যের কারণে আশপাশের মানুষও তাঁদের কন্যাসন্তানকে এগিয়ে দিতে চায়। এটা আমার জন্য গর্বের বিষয়। শুধু এটুকু বলব, বাবা-মা সহযোগিতা করলেই সন্তানরা এগিয়ে যাবে।”

আরও পড়ুন: যুদ্ধের প্রভাব: রাশিয়া-বেলারুশে হবে না কোনও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রী এবং এথেন্স অলিম্পিকে রুপোর পদক বিজয়ী রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর, কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী কিরেন রিজিজু-সহ বহু সাদিয়া তারিককে স্বর্ণপদক জয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন। টুইটে প্রধানমন্ত্রী লিখেছেন, “মস্কো উশু চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণপদক জেতার জন্য সাদিয়া তারিককে আন্তরিক অভিনন্দন। তাঁর সাফল্য অন্য অনেক ক্রীড়াবিদকে প্রভাবিত করবে। তার আগামীর জন্য শুভকামনা। ভারতের মেয়েরা উজ্জ্বল হয়ে উঠুক।”

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *