আনন্দে উদ্বেল অসম থেকে আন্দামান: লভলিনার সাফল্যের নেপথ্যে ধৈর্য এবং উচ্চতা, জানালেন কোচ কামার

Mysepik Webdesk: ভারতের পক্ষে আরও একটা পদক নিশ্চিত করেছেন অসমের ২৩ বছরের বক্সার লভলিনা বরগোঁহাই। চাইনিজ তাইপের প্রতিপক্ষ প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন নিয়েন-চিন চেনকে ৪-১ ব্যবধানে পরাজিত করেছেন এই ভারতীয় বক্সার। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে দু’বারের ব্রোঞ্জ পদক জয়ী লভলিনা চাইনিজ তাইপের প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারানোর জন্য যথেষ্ট সংযম দেখিয়েছিলেন। উল্লেখ্য যে, চাইনিজ তাইপের এই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আগে পরাজয় স্বীকার করেছিলেন লভলিনা। আক্রমণাত্মক শুরুর পরে শেষ তিন মিনিটে তিনি নিজের ডিফেন্সকে কন্ট্রোল করেছিলেন। এই সময় কাউন্টার অ্যাটাকেরও কোনও সুযোগ ছাড়েননি তিনি।

আরও পড়ুন: সেমিফাইনালে লভলিনা, ভারত মেয়েদের বক্সিং পদক নিশ্চিত করল

জাতীয় কোচ মহম্মদ আলি কামার প্রসঙ্গত বলেছেন, “লভলিনা পাল্টা আক্রমণের কৌশল অনুসরণ করেছিলেন এবং উচ্চতার ফায়দা নিয়েছিলেন। একই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টা করে হারতে হয়েছিল লভলিনাকে। এবার তাকে বলেছিলাম, দাঁড়িয়ে থাকো, প্রতিপক্ষকে আসতে দাও।”

আরও পড়ুন: বিদ্যানগরে ‘মোহনবাগান দিবস’ উদ্‌যাপন

তিনি আরও বলেন, “ও ধৈর্যের পরীক্ষা সফল হয়েছে। কোনওরকম রোমাঞ্চিত হয়নি লভলিনা। এমনকী অতিরিক্ত আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টাও করেনি। স্ট্যাটিজিকে খুব সুন্দরভাবে বাস্তবায়িত করেছিল লভলিনা।” উল্লেখ্য যে, গত বছর করোনা সংক্রমণের পর লভলিনা ইউরোপে অনুশীলন সফরে যেতে পারেননি। এহেন ভারতীয় বক্সারের এমন সাফল্য ছিল সত্যিই বড় চ্যালেঞ্জের। আম্পায়ার যখন তাঁর হাত বিজয়ী হিসেবে তুলে ধরলেন, আনন্দে চিৎকার করে উঠেছিলেন অসমের মেয়ে লভলিনা। আর তাঁর চিৎকার যেন টোকিও থেকে পৌঁছে গেল অসম হয়ে আন্দামানে। লভলিনার সাফল্যে আজ খুশিতে উদ্বেল গোটা দেশ।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *