ত্রিপুরার অন্তত ১৫ হাজার বিজেপি কর্মী তৃণমূলে যোগদানের অপেক্ষায়!

Mysepik Webdesk: বাংলার একুশে নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের ঐতিহাসিক জয়ের পর একর পর এক তৃণমূল নেতা-কর্মী তৃণমূলে যোগদান করেছেন। অন্যদিকে ভোটের আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া নেতা-নেত্রীরাও ফের তৃণমূলে ফেরার জন্য পা বাড়িয়ে রয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে গোটা দেশেই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা বিজেপি-বিরোধী মুখ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখতে চাইছেন। সেই কারণেই বাংলা দখলের পর এবার প্রতিবেশী রাজ্যগুলির বিজেপি শিবিরেও ভাঙ্গন ধরাতে তৎপর তৃণমূল কংগ্রেস। তারই মধ্যে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করলেন ত্রিপুরার তৃণমূল রাজ্য কমিটির সভাপতি আশিস লাল সিং।

আরও পড়ুন: দেশে আরও কমল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা, নেমে গেল ৫০ হাজারেরও নিচে

দুই-একজন নয়, অন্তত ১৫ হাজার বিজেপি সমর্থক মুখিয়ে রয়েছেন বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য। তিনি জানান, “ত্রিপুরায় ইতিমধ্যেই বিজেপি সরকারের মধ্যে ভাঙ্গন শুরু হয়ে গিয়েছে। সেখানকার অন্তত ১৫ হাজার বিজেপি সমর্থক পা বাড়িয়ে রয়েছেন তৃণমূলের দিকে। শুধুমাত্র করোনার কারণে গণ যোগদান আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে এই আয়োজন করা হবে। আমি আশা রাখছি, আগামী জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই আমরা এই যোগদানের কাজ সেরে ফেলতে পারব।”

আরও পড়ুন: বিয়ের তথ্য ভুল, নুসরতের সাংসদ পদ খারিজের দাবি বিজেপি সংসদের

প্রসঙ্গত, বেশকিছুদিন ধরেই ত্রিপুরায় বিজেপি সরকারের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অনেক বিজেপি নেতা-নেত্রীরাই বেসুরো গাইছেন। অনেকেই আবার তলে তলে তাঁদের ঘনিষ্ট মুকুল রায়ের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছেন। মোটকথা ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সরকারে ইতিমধ্যেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম পর্যায়ে শুরু হয়ে গিয়েছে। আর এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফায়দা তুলতে চাইছে বাংলার তৃণমূল কংগ্রেস। আশিস বাবুর কথায়, এভাবে ত্রিপুরায় বিপ্লব দেবের সরকার আর কিছুদিন চললে সেখানে কালাহান্ডি বা সোমালিয়ার মত অবস্থা হবে। তাছাড়া ওই রাজ্যে বাজেট বরাদ্দ রীতিমতো লুটপাট হচ্ছে বলেও দাবি করছেন তিনি। তিনি জানান, এই সমস্ত অভিযোগের প্রমাণ স্বরূপ তথ্য তিনি আর কয়েক দিনের মধ্যেই জনসাধারণের সামনে তুলে ধরবেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *