বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গে এক ভয়ের বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে: রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার

Mysepik Webdesk: এদিন দুপুরে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলে নির্ভীক সুভাষ নামে এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার। আজাদ হিন্দ ফৌজ যে সমস্ত অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিল, এ দিন এখানে তার শুভ উদ্বোধন করেন তিনি। এর পাশাপাশি বর্তমানে বাংলার রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার। তিনি জানিয়েছেন বর্তমানে বাংলায় সম্পূর্ণ এক ভয়ের বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন: জোকার বাড়ি থেকে উদ্ধার তিনটি ঝুলন্ত দেহ, চাঞ্চল্য এলাকায়

তিনি যখন থেকে রাজ্যপাল হয়ে এই রাজ্যে এসেছেন তখন থেকেই তিনি দেখছেন এই ভয়ের সঞ্চার হয়েছে বাংলায়। এদিন তিনি সিন্ডিকেটের বিরুধ্যে সুর ছড়িয়ে বলেন, এক বস্তা সিমেন্ট থেকে ১০০টি ইট কিনতে গেলেও সিন্ডিকেটের শিকার হতে হয়। সেই টাকা কোথায় যাচ্ছে এবং তাদের বাঁচানোর জন্য পুলিশ ফোর্স কেন পৌঁছাচ্ছে এবং এই ঘটনার পেছনে কাদের হাত রয়েছে পুরো বিষয়টির ওপর আলোকপাত করেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার। তিনি জানিয়েছেন আসলে সমস্ত কিছু ঘিরে রয়েছে ভয়। কেউ সাহস করে মুখ খুলতে পারেন না। অনেকেই রাজভবনে আসেন এবং অনেক কোথায় বলেন কিন্তু নিজের নাম লুকিয়ে রাখার অনুরোধ করা যান। কারণ একটাই, তারা ভয় পান।

আরও পড়ুন: দ্বিতীয় হুগলী সেতুতে আর গাড়ি দাঁড় করিয়ে সেলফি নয়, সোজা যেতে হবে হাজতে

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়, সেই বিষয়ে তিনি এদিন আলোকপাত করেছেন। তিনি তিনটি বিষয়ের ওপর জোর দিয়েছেন ভয, ভায়োলেন্স এবং কোন সরকারি আধিকারিকদের রাজনীতির শিকার যাতে না হন। সুষ্ঠুভাবে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন করতে গেলে এই তিনটে জিনিস থেকে মানুষকে বেরিয়ে আসতে হবে। সরকারি আধিকারিকরা যেন কোনভাবে রাজনীতির শিকার না হয় সেই বিষয়ের ওপর তিনি বারবার করে জোর দিয়েছেন। তার কারণ সরকারি আধিকারিক সরকারের কর্মচারী তাদের দায়িত্ব সরকারের কাজ করা। কোন রাজনীতির শিকার হওয়া নয় বলে এদিন তিনি আরো একবার জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন ভয় এবং সংবিধান এবং গণতন্ত্র কখনো একসঙ্গে চলতে পারে না। আমাদের সবার উচিত গণতন্ত্রে সংবিধান মেনে চলা।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *