পেট্রল সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়

Petrol

Mysepik Webdesk: দেশে জ্বালানি তেল যেন টি-২০ ফরম্যাটের পাওয়ার প্লে-তে ব্যাট করতে নেমেছে। হু হু করে দাম বেড়েই চলেছে। একটানা ছ’দিন জ্বালানি তেলের দাম বাড়ল দেশজুড়ে। সেই দাম এতটাই বেড়েছে যে কলকাতায় এই প্রথম পেট্রলের দর ৯০ টাকা ছাড়িয়ে গেল। ক্রমাগত জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় ওষ্ঠাগত হয়ে উঠেছে সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন: আজ ভ্যালেন্টাইন ডে-তে মহিলাদের স্বনির্ভর করার লক্ষ্যে সাইকেল র‌্যালি নয়ডা পুলিশের

রবিবার কলকাতায় ইন্ডিয়ান অয়েলের পাম্পে পেট্রল বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকা ১ পয়সা করে। আর ডিজেলের দাম হয়েছে ৮২ টাকা ৩৫ পয়সা। তবে শুধু মহানগরীতে নয় মুম্বই, দিল্লি, নয়ডা, বেঙ্গালুরু, জয়পুর-সহ দেশের প্রায় সর্বত্র জ্বালানি তেলের দাম সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়। রবিবার মুম্বইয়ে পেট্রলের দাম পড়ছে ৯৫ টাকা ২১ পয়সা লিটারপিছু। আর ৮৬ টাকা ৪ পয়সা দরে বিক্রি হচ্ছে ডিজেল। দিল্লিতে লিটারপিছু পেট্রলের দাম পড়ছে ৮৮ টাকা ৪৪ পয়সা, ডিজেল ৭৯ টাকা ৬ পয়সা।

আরও পড়ুন: একলাফে মাসিক পেনশনের সর্বোচ্চসীমা বাড়ল আড়াই গুণেরও বেশি

গত ৬ জানুয়ারি থেকে দেশজুড়ে জ্বালানি তেলের দাম উর্ধ্বমুখী হয়েছে। কেন্দ্র সরকারের দাবি, বিশ্ব বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধির ফলে দেশজুড়ে তেলের দাম বাড়ছে। তবে বিরোধীরা সে কথা মানতে নারাজ। বিরোধীদের দাবি, নরেন্দ্র মোদি সরকারের শুল্কনীতির জন্য জ্বালানি তেলের দাম হু হু করে বেড়ে চলেছে। বিশ্ব বাজারে যখন অপরিশোধিত তেলের দাম কমেছে, তখনও পেট্রল এবং ডিজেলের উপর শুল্ক বাড়িয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর ফলে আখেরে কোনও লাভ হয়নি আমজনতার। কেন্দ্রীয় পেট্রলিয়াম মন্ত্রকের দাবি, বিরোধীরা সরকারের বিরুদ্ধে ভুয়ো প্রচার চালাচ্ছেন।

এদিকে বিরোধীদের বক্তব্য, কংগ্রেসের আমলে বিশ্ব বাজারে ব্যারেলপিছু অশোধিত তেলের দাম ১০৮ ডলার ছাড়িয়ে গিয়েছিল। আর এখন ব্যারেলপিছু দাম পড়ছে ৬০-৬২ ডলারের মধ্যে। তাহলে জ্বালানি তেলের বাড়ছে কেন বলে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *