বড় স্কোরের পথে অস্ট্রেলিয়া

Mysepik Webdesk: ব্রিসবেনে আজ থেকে শুরু হয়েছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে গাভাসকর-বর্ডার ট্রাফির চূড়ান্ত টেস্ট ম্যাচ। প্রথম দিন তুল্যমূল্য লড়াইয়ের বিচারে এগিয়ে রইল টিম পেইনের দল। টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের পরে স্বাগতিক দল ওভারপ্রতি ৩.১৫ রান তুলে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান সংগ্রহ করেছে ব্যাগি গ্রিনরা। এই মুহূর্তে অধিনায়ক টিম পেইন (৩৮) এবং ক্যামেরন গ্রিন (২৮) অপরাজিত রয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান মার্নস লাবুশানে তাঁর টেস্ট কেরিয়ারের ৫ম সেঞ্চুরি করেন। তিনি ২০৪ বলে ১০৮ রান করেছিলেন। একইসঙ্গে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নেমে পেস বোলার টি নটরাজন ২ উইকেট এবং স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর একটি উইকেট নিয়েছিলেন। এছাড়াও মহম্মদ সিরাজ এবং শার্দূল ঠাকুর একটি করে উইকেট পেয়েছেন।

যদিও অস্ট্রেলিয়ায় শুরুটা হয়নি। ম্যাচের প্রথম ওভারে মহম্মদ সিরাজ প্রথম ধাক্কা দেন। ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ১ রান করেন। তাঁর ক্যাচ স্লিপে ধরেন রোহিত শর্মা। দ্বিতীয় ধাক্কাটি শার্দূল ঠাকুর ম্যাচে তাঁর প্রথম এবং দলগত নবম ওভারে দিয়েছিলেন। ওপেনার মার্কাস হ্যারিসকে (৫) তিনি প্যাভিলিয়নে ফেরান। ওয়াশিংটন সুন্দর নেন হ্যারিসের ক্যাচ। অস্ট্রেলিয়া ১৭ রানে ২ উইকেট হারিয়ে শুরুটা বেশ চাপে পড়ে যায়।

স্টিভ স্মিথ এরপর লাবুশেনের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটের ৭০ রানের জুটি গড়েন। অভিষেক ঘটানো ওয়াশিংটন তাঁর টেস্ট কেরিয়ারের প্রথম উইকেট নিয়ে এই জুটিটি ভেঙে দেন। তিনি ৩৬ রানে স্মিথকে ফেরান। স্মিথের ক্যাচ নেন সিলি মিডঅনে দাঁড়ানো রোহিত শর্মা। ওয়েড এরপর মার্নাস লাবুশানের সঙ্গে ১১৩ রানের জুটি গড়েন। ম্যাথিউ ওয়েডকে ব্যক্তিগত ৪৫ রানে সাজঘরে ফেরান শার্দূল ঠাকুর। এর পরে নটরাজনের বলে উইকেটরক্ষক ঋষভ পন্থের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১০৮ রানে আউট হন লাবুশানে। উল্লেখ্য যে, তিনি যখন ৩৭ রানে অপরাজিত, তখন নভদীপ সাইনির বলে একবার জীবনদান মেলে তাঁর। অধিনায়ক রাহানে তাঁর সহজ ক্যাচ মিস করেন। এরপর ৪৫তম ওভারে নটরাজনের বলে লাবুশানের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে প্রথম স্লিপের দিকে গেলেও ক্যাচ নিতে ব্যর্থ হন পুজারা। যদিও ক্যাচটি কিছুটা কঠিন ছিল।

২১৩/৫ হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। গ্রিন এবং পেইন ৬১ রানের অপরাজিত জুটি গড়েন। যদিও ৮০তম ওভারের তৃতীয় বলটিতে শার্দূল ঠাকুর নিজের বলেই ক্যামেরন গ্রিনের ক্যাচ ছেড়ে দেন। গ্রিন তখন ১৯ রানে ব্যাটিং করছিলেন। এদিন একেবারে অনভিজ্ঞ বোলিং লাইন আপ নিয়ে খেলতে নেমেছিল ভারত। তার ওপর ৭.৫ ওভার বোলিং করে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন নভদীপ সাইনি। এরপর আর মাঠে নামতে পারেননি তিনি। টিম ইন্ডিয়ার তরুণ বোলিং-ব্রিগেড চেষ্টা করলেও অভিজ্ঞতার অভাব প্রকট হচ্ছিল বারবার। কাল সকালে যদি উইকেটে থিতু হয়ে যাওয়া দুই ব্যাটসম্যানকে প্রথমদিনের ভুলত্রুটিগুলো না শুধরে প্যাভিলিয়নে না ফেরাতে পারেন ভারতীয় বোলাররা, তাহলে নিশ্চিতভাবেই বড় ইনিংস গড়তে চলেছে অস্ট্রেলিয়া।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *