আয়ুবিষয়ক

সিদ্ধার্থ বসু


এত চাই,
সে তো সব চাওয়া ক্রমে ঝরে যাবে বলে

এত প্রেম, এত যে বাসনা
যন্ত্রণায় আকুলি-বিকুলি
সবই এক চরম শেষের পানে ধায়

এই যে এখানে আমি

পরিবৃত, পরিত্যক্ত, একা, অসহায়


শরীর শরীর এই
মন এই মন
কেবলই ইন্ধন চায়
অনন্ত আকাঙ্ক্ষাবীজ অস্তিত্বে আমার

ক্রমে পুড়ি
সবটুকু ছাই হয়ে যেতে

আরও পড়ুন: হাথক দরপণ


এত রং
এত রোশনাই
তোমাকে-তোমাকে-তাকে
আমার সমস্তকিছু চাই

যতক্ষণ জেগে থাকি
লোভে-লাভে ছুটি আর শুধু ছুটে যাই

ঝ’রে যাব বলে শুধু
এই ঘরবার


এই রূপ
থাকবে না
মুছে যাবে
এ স্বভাবদোষ

তোমার দু-চোখে শুধু ফুটে থাকবে দিন আর রাত

আরও পড়ুন: তিনটি কবিতা


ফুরিয়ে যেতেই হবে বলে
এত হাসি, এত অভিমান
লঘু আস্ফালন আর মত্ত উতরোল

বাঁশির সুরের পথ
নয় হয়তো,
হয়তো উদগ্র শোরগোল


আনকোরা আয়ু এই
প্রাণপণ হল্লা আর
নিরুপায় বিষাদবাষ্পের

ঢিমেতালে গলি মোম
স্তিমিত শিখার মতো পুড়ি

যে আঁধার ছিঁড়ে ছিঁড়ে আলো
তারই বুকে ডুবে যাওয়া ভালো

আরও পড়ুন: বর্ষা সিরিজ


কোথায় পৌঁছতে চাই
জানি না জানি না
শুধু এক
প্রারব্ধ খেলার মাঝপথে
খুঁজে পাই উদ্গ্রীব আমায়

যে উপায়ে শুরু হয়ে গেছে
ততখানি অনায়াস শেষ করা যায়?


ঘনঘোর আষাঢ় নেমেছে
লোভ-কাম-মূঢ়তা-ত্রস্ততা
সর্বাংশে জড়িয়ে আমি
বসে আছি খোলা জানলায়

এই রঙে, এ আলোয়, অজস্র ধারায়
আমাকে কি অন্ধকার মুছে নিয়ে যাবে?


ছায়া ঢাকা ঘর
ছায়ার শহর
আমি নিজেকে জ্বালাই

সোনা-রুপো প্রেম-কাম আলো আর কালি

সকলই ফুরায়
আর

মুঠো ছাই জমে থাকে খালি

১০
পথে পথে
নেচে নেচে গেল বৃষ্টি

এ পথ আমারও পথ
রোদে জ্ব’লে, জলে ধুয়ে ধুয়ে
ছড়িয়ে ছিটকে গিয়ে
অনন্ত ধারায়

সমস্ত প্রেমের গল্প
প্রতি কণা ঘৃণার দস্তান

কোন অনিবার্যতার পা’য়?

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *