ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভূত বাগবাজারের বস্তি, এলাকায় মোতায়েন RAF, সকালে আসবে ফরেনসিক দল

Mysepik Webdesk: ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সাক্ষী রইল কলকাতার বাগবাজার। ১৩ জানুয়ারির সন্ধ্যায় বাবুবাজার ব্রিজের কাছে একটি বস্তিতে আগুন লাগে। আগুন ক্রমে ছড়িয়ে পড়তে থাকে গোটা বস্তিতে। এমনকী পার্শ্ববর্তী বস্তিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কাও সত্যি হয়। এমনকী মায়ের বাড়ির একাংশেও আগুন লেগে যায়। বহুতলেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তাছাড়াও এলাকায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণের শব্দও শোনা যায়। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে এলাকায় পৌঁছয় দমকল। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে কম করে ২৭টি দমকল ইঞ্জিন বাগবাজার পৌঁছেছিল। তাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ঘণ্টাখানেক পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

আরও পড়ুন: চলবে মেট্রোর কাজ, ৫ দিন বন্ধ শিয়ালদহের বিদ্যাপতি সেতু

এই অগ্নিকাণ্ডের ফলে উত্তর কলকাতার যানচলাচল কার্যত স্তব্ধ হয়ে যায়। অফিস ফেরত যাত্রীরা প্রবল সমস্যায় পড়েন। যে সমস্ত যাত্রীরা ডানলপ বা ব্যারাকপুরগামী বাসে উঠেছিলেন তাঁরা পড়েন সবচেয়ে বেশি সমস্যার মধ্যে। একদিকে টালা ব্রিজ পুনর্নির্মাণ চলছে। সেই কারণে শ্যামবাজার দিয়ে বাস রাজবল্লভ পাড়া হয়ে লকগেট দিয়ে বিটি রোড ধরে ডানদিকে যাত্রা করে। তবে এদিন সন্ধ্যায় বাগবাজারে অগ্নিকাণ্ডের পরে চিত্রটা সম্পূর্ণ পাল্টে যায়।

আরও পড়ুন: নেতাজির ভাইজি চিত্রা ঘোষের প্রয়াণ, শোকবার্তা প্রধানমন্ত্রীর

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে সাগর থেকে তড়িঘড়ি বাগবাজার এসে পৌঁছন পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। বস্তিবাসীদের চারটি কমিউনিটি হলে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ফিরহাদ হাকিম বলেন, ”বস্তিবাসীদের আপাতত বাগবাজার উইমেন্স কলেজ এবং কমিউনিটি হলে রাখা হয়েছে। খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।” ফিরহাদ হাকিম ছাড়াও আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে এসেছিলেন স্থানীয় কাউন্সিলর সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৪ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে ফরেনসিক দল এসে সরেজমিনে ঘুরে দেখবে বলেও জানা গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স (আরএএফ)। প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত কিছুটা স্বাভাবিক বলে মনে হলেও অগ্নিকাণ্ডের ফলে অভূতপূর্ব ক্ষতির মোকাবিলা কীভাবে হয় তা বোঝা যাবে বৃহস্পতিবার সকালে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *