ভিড় কমাতে আসরে পুলিশ, বাজারগুলির প্রবেশপথে লাগানো হচ্ছে বাঁশের ব্যারিকেট

Mysepik Webdesk: করোনা আবহের মধ্যেও কলকাতা-সহ রাজ্যের একাধিক বাজারে দেখা যাচ্ছে মানুষের ভিড়, যা রীতিমতো ভাবাচ্ছে প্রশাসনকে। তবে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলোয় কঠোরভাবে লকডাউন বজায় রাখার জন্য বাজারগুলির ওপর বিশেষ নজর দিয়েছে প্রশাসন। অনেকক্ষেত্রেই দেখা গেছে, অনেকেই সামাজিক দূরত্ব না মানার পাশাপাশি মাস্ক না পরেই বাজারে ভিড়ের মধ্যে ঢুকে পড়ছেন। এর ফলে সংক্রমণ ছড়ানোর একটা আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। রাজ্যবাসীদের এই বাজারে ভিড় করার প্রবণতাকে লাগাম দিতে এবার আসরে নেমেছেন পুলিশবাহিনী। পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশে রবিবার থেকেই বাজারগুলির প্রবেশপথে বাঁশের ব্যারিকেট দিয়ে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করছেন পুলিশকর্মীরা।

আরও পড়ুন: খারাপ সময় যেন কাটছেই না পৃথিবীর, ফের ধেয়ে আসছে বিশালাকার গ্রহাণু

এদিকে রাজ্যের একাধিক জায়গায় বিশেষ করে কনটেনমেন্ট জোনে পুলিশ বা পুরসভার কর্মীরা বাসিন্দাদের বাড়ি বাড়ি প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পৌঁছে দিচ্ছেন। শ্যামবাজার কিংবা বড়তলার মতো ঘনজনবসতিপূর্ণ এলাকায় মাস্ক না পরে বাড়ির বাইরে বেরনোর জন্য অনেককেই কান ধরে ওঠবোস করিয়েছেন পুলিশ প্রশাসন। পাশাপাশি পুরসভা মাস্ক ব্যবহার করার জন্যও অনুরোধ করছেন সবাইকে। বাসিন্দাদের অনুরোধ করা হচ্ছে, ‘বাজারে ভিড় এড়িয়ে চলুন, সপ্তাহে একদিন যতটা সম্ভব বাজার করে রাখুন’।

আরও পড়ুন: বিশ্বব্যাপী চাকরি বাঁচাতে নতুন পরিকল্পনা নিয়ে আসছে মাইক্রোসফট

বাজারের পাশাপাশি ব্যাঙ্কগুলিতেও ভিড় বাড়ছে, যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি জানিয়েছেন, “খবর পাচ্ছি বহু ব্যাঙ্কের লাইনে বেশ ভিড় হচ্ছে। এই ভিড় কমানোর জন্য পুরসভার মতো ব্যাঙ্কগুলো স্লিপের ব্যবস্থা চালু করতে পারে, যেমনটা করা হয়ে থাকে বিভিন্ন পুরসভাতে।” প্রসঙ্গত, ভিড় এড়াতে পুরসভাতে জন্ম-মৃত্যুর শংসাপত্র নেওয়ার জন্য কেউ অনলাইনে আবেদন করলে তিনি কোন সময়ে আসবেন, তা আগে থেকেই জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *