টোকিও প্যারালিম্পিকে অংশগ্রহণ বিশ বাঁও জলে: অনিশ্চিত দুই আফগান ক্রীড়াবিদের জীবন

Mysepik Webdesk: আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি শুধু সাধারণ মানুষের জীবনকেই প্রভাবিত করেনি, দু’জন অ্যাথলেটের জীবনকেও প্রভাবিত করেছে। দেশটি থেকে দু’জন প্যারা-অ্যাথলেট জাকিয়া খুদাদাদি এবং হোসেন রাসুলির টোকিও প্যারালিম্পিকে অংশ নেওয়ার কথা ছিল। তবে আফগানিস্তানে বর্তমান পরিস্থিতিতে তাঁরা দেশ ছেড়ে বেরোতে পারবেন বলে মনে হয় না।

জাকিয়া খুদাদাদি প্রথম মহিলা, যিনি আফগানিস্তান থেকে প্যারালিম্পিকে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছিলেন। আফগানিস্তানের হয়ে তায়কোয়ান্দোয় অংশ নিতেন তিনি। তবে, এই মুহূর্তে দেশটির আন্তর্জাতিক বিমান বন্ধ। তাই এই প্যারালিম্পিকে তাঁর যাওয়ার স্বপ্ন ভেঙে গিয়েছে। জাকিয়া ছাড়াও তাঁর সঙ্গে দেশটি থেকে ডিসকাস থ্রোয়ে আফগানিস্তানকে প্রতিনিধিত্ব করার কথা ছিল হোসেন রাসৌলি। এহেন রাসৌলির সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথা ছিল জাকিয়ার। কিন্তু তালিবানরা আফগান দখলের পর থেকে এমন এক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, যারফলে তাঁদের জাপান যাওয়ার সম্ভাবনা এখন বিশ বাঁও জলে। সোমবার নিশ্চিত করা হয় যে, তালিবান দখলের কারণে কোনও অ্যাথলেটই তাঁদের নির্ধারিত বিমান ধরতে পারেননি।

mirror.co.uk প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, আফগানিস্তান প্যারালিম্পিক কমিটির মিশনের চিফ আরিয়ান সাদিকি দেশটির বর্তমান অবস্থার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, “এই বর্তমান পরিস্থিতি আফগান জাতিকে বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে। দেশে শান্তি ও সমৃদ্ধির অনেক আশা ও স্বপ্ন ভেঙে দিয়েছে। ন্যাশনাল প্যারালিম্পিক কমিটি অব আফগানিস্তান (এনপিসি)-এর দল টোকিও যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আফগানিস্তানে চলমান অভ্যুত্থানের কারণে জাকিয়া খুদাদাদি সহ গোটা টিম সময়মতো কাবুল ত্যাগ করতে পারেননি।”

প্যারালিম্পিকের আগে জাকিয়া খুদাদাদি বলেছিলেন, “প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য ওয়াইল্ড কার্ড পেয়েছি এই খবর পাওয়ার পর আমি রোমাঞ্চিত হয়ে উঠেছিলাম। এই প্রথম কোনও মহিলা অ্যাথলেট প্রতিযোগিতায় আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করবেন এবং আমি খুব খুশি। আমি বেশ অবাক হয়েছিলাম। একইসঙ্গে চিন্তিতও ছিলাম। প্রায় কোনও সুযোগ-সুবিধা ছাড়াই প্রস্তুতির জন্য আমার হাতে মাত্র দুই মাস ছিল। আমি শুধু বিশ্বের অন্যান্য ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে থাকতে চাই এবং আমার সেরাটা দিতে চাই। এটা আমার যোগ্যতা দেখানোর একটি সুযোগ এবং আমি সেই সব ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে দাঁড়াতে পেরে গর্ববোধ করব।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *