ভারতীয় পুরুষ হকি দলকে অভিনন্দন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট ভবানী দেবীর

IND

Mysepik Webdesk: ভারতীয় পুরুষ হকি দল ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। ৪১ বছরের খরা কাটিয়েছে এই ভারতীয় দল এখন তাঁরা অলিম্পিক থেকে ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে দেশে ফিরবেন। ভারতের হকি দল অলিম্পিকে সর্বশেষ পদক পেয়েছিল ১৯৮০ সালে মস্কো অলিম্পিকে। বাসুদেবন ভাস্করণের অধিনায়কত্বে ভারত সোনা জিতেছিল সেই বছর। আর আজ ছিল পুরুষদের হকিতে আসছিল ব্রোঞ্জ পদকের জন্য লড়াইয়ের ম্যাচ। মুখোমুখি হয়েছিল ভারত এবং জার্মানি। তৃতীয় কোয়ার্টারে টিম ইন্ডিয়া ৫-৩ গোলে লিড নেয়। যদিও দ্বিতীয় কোয়ার্টারে ১-৩ গোলে পিছিয়ে থাকার পর ভারত অনবদ্য ভাবে ম্যাচে প্রত্যাবর্তন করে পরপর চারটি গোল করে। ভারতের হয়ে সিমরনজিৎ সিং (১৭, ৩৪ মি), হার্দিক সিং (২৭ মি), হরমনপ্রীত সিং (২৯ মি) এবং রূপিন্দর পাল সিং (৩১ মি) গোল করেন। আর এই ঐতিহাসিক ভারতীয় পুরুষ হকি দলকে অভিনন্দন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন ফেন্সার ভবানী দেবী। তিনি লেখেন, “ঐতিহাসিক জয়ের জন্য মনপ্রীত সিং, শ্রীজেশ পি আর এবং সমগ্র ভারতীয় হকি দলকে অনেক অভিনন্দন। গত ৪১ বছরে হকিতে এটি প্রথম অলিম্পিক পদক।”

আরও পড়ুন: কুস্তিতে কামড়-কাণ্ডের বিতর্ক দূরে সরিয়ে রবি কুমার দাহিয়া আজ নামছেন সোনার লক্ষ্যে

উল্লেখ্য যে, হাফটাইমের আগে ৩১ মিনিটে রূপিন্দর পাল সিং পেনাল্টি কর্নার থেকে গোল করে ভারতকে ৪-৩ ব্যবধানে এগিয়ে দিয়েছিলেন। এর মাত্র ৩ মিনিট পর সিমরনজিৎ সিংয়ের গোলে ৫-৩ ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েছিল ভারত। আজকের ম্যাচে টিম ইন্ডিয়া যেভাবে প্রত্যাবর্তন করেছে, তা নিয়েও আগামীতে গল্পগাথা লেখা হতে পারে বলে ধারণা। দ্বিতীয় কোয়ার্টারের শুরুতে প্রত্যাবর্তন করে। সিমরনজিৎ সিং ১৭তম মিনিটে গোল করে ভারতকে ১-১ সমতায় ফেরান। এর পরে, জার্মানির ওয়েলেন আরেকটি গোল করে জার্মানিকে ২-১ গোলে এগিয়ে দেন। এর পর ২৫ মিনিটের মাথায় জার্মানি এগিয়ে যায় ৩-১ গোলে। হাল ছাড়েনি ভারত। হার্দিক সিং ২৭ মিনিট এবং হরমনপ্রীত সিং ২৯ মিনিটে গোল করে স্কোরলাইন ৩-৩ করেন। চতুর্থ কোয়ার্টারে জার্মানি গোল করে ব্যবধান কমায়। ব্যবধান কমানোর পর দলকে সমতায় ফেরানোর জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন তাঁরা। ভারতের ডিফেন্স লাইন এবং গোলরক্ষক সজাগ থাকায় জার্মানি আর সমতায় ফিরতে পারেনি। খেলা শেষ হতে যখন মাত্র কয়েক সেকেন্ড বাকি, পেনাল্টি কর্নার আদায় করে নেয় তারা। উত্তেজনার পারদ বাড়তে থাকে ভারতীয় সমর্থকদের মধ্যে। তবে তা থেকে পতন কিছু ঘটেনি। ভারতীয় পুরুষ হকি দল ৫-৪ গোলে ম্যাচ জিতে ৪১ বছর পর পদক নিয়ে দেশে ফিরবে।

আরও পড়ুন: ৪১ বছর পরে হকিতে মেডেল এলো ভারতের: এখন প্রশ্ন একটা না দু’টি?

এই জয়ের পর গোটা দেশ আনন্দে মেতে উঠেছে। অলিম্পিকে ইতিহাস গড়া ফেন্সার ভবানী দেবীও দেশের পুরুষদের হকিতে ব্রোঞ্জ আনার জন্য একই খুশিতে মেতেছেন। তিনি জাতীয় পুরুষ হকি দলের অধিনায়ক মনপ্রীত সিং এবং গোলকিপার শ্রীজেশের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করে টিম ইন্ডিয়াকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সেই পোস্ট ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে। টোকিও অলিম্পিকে শুরুটা ভালোই করেছিলেন এহেন সি এ ভবানী দেবী। ফেন্সিংয়ে ভারতের ভবানী দেবী তিউনিসিয়ার নাজিয়া বেন আজিজিকে হারিয়ে দিয়ে ইতিহাস গড়েছিলেন। তবে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে ফ্রান্সের মনন ব্রুনেটের কাছে হার স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছিলেন ভবানী দেবী। সেই খেলার ফলাফল ছিল ৭-১৫। যদিও ভবানী দেবী হেরে গেলেও ভারতীয় অলিম্পিক ইতিহাসে নতুন নজির রেখে গিয়েছিলেন। প্রথমত, তিনি প্রথম ভারতীয় অলিম্পিয়ান হিসাবে ফেন্সিং ইভেন্টে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। দ্বিতীয়ত, ভবনী দেবীই প্রথম ফেন্সার হিসেবে দেশের হয়ে অলিম্পিকে জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন। তিনি ভারতীয় ফেন্সিংয়ে আগামী প্রজন্মের কাছে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *