ওভারল্যাপ খ্যাত ভবানী রায় প্রয়াত: ময়দানে শোকের ছায়া

Mysepik Webdesk: দেহাবসান হল কিংবদন্তি ফুটবলার ভবানী রায়ের। এদিন সকাল ৮টা ২২ মিনিট নাগাদ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ভুগছিলেন বার্ধক্যজনিত সমস্যায়। ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম ‘স্ট্যাটেজি’র আমদানি হয়েছিল তাঁর হাত ধরেই। উইং ব্যাকের কাজ যে শুধু রক্ষণ সামলানো নয়, বরং উইং থেকে আক্রমণে উঠে স্ট্রাইকারদের বল দেওয়াটাও যে তাঁদের কাজ, এই ওভারল্যাপ ছক তুলে ধরেছিলেন অমল দত্ত, আর তার পুরোধা ছিলেন ভবানী রায়। এহেন ফুটবল ব্যক্তিত্বের মৃত্যুতে ময়দানে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বালি প্রতিভা ক্লাব থেকে তিনি শুরু করেছিলেন ফুটবল জীবন। ইস্টার্ন রেলওয়ে যোগ দেন এর পর।

আরও পড়ুন: রবিবার মোহনবাগান সমর্থকদের রিমুভ এটিকে আন্দোলনের সাক্ষী রইল কলকাতা ময়দান

ফুটবল জীবনে তিনি পেয়েছেন বাঘা সোমের মতো ফুটবল ব্যক্তিত্বের কোচিং। মূলত, তাঁর ফুটবল প্রতিভা আরও ক্ষুরধার হয়ে ওঠে বাঘার সংস্পর্শে এসেই। ১৯৬৯-তে ভবানীকে রাইট ব্যাকে খেলাতে শুরু করেন কোচ অমল দত্ত। সেই সময় তিনি হাফে খেলতেন। যদিও এহেন ভবানী মাঝমাঠে খেলা শুরু করেছিলেন। ওভারল্যাপে উঠে বিপক্ষের রক্ষণে চাপ বাড়ানোর কৌশলটা কিন্তু প্রথম দেখিয়েছিলেন ভবানী। ওভারল্যাপ খ্যাত ভবানী ১৯৬৬-৬৭ মরশুমে কলকাতার ক্লাব মোহনবাগানের যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এরপর টানা সাত বছর মোহনবাগানের খেলেছিলেন তিনি। ১৯৭২ সালে মোহনবাগানের ক্যাপ্টেন ছিলেন তিনি। কালন গুহর সঙ্গে তাঁর জুটি ময়দানে দারুণ চর্চিত। খেলেছেন দেশের হয়ে এবং বাংলার হয়েও। দেশের হয়ে ১৯৭০-সুযোগ পেয়েছিলেন এশিয়ান গেমসেও। অবসর নেন ভ্রাতৃসংঘে খেলে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *