ছ’বছর আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চড় মারা যুবকের রহস্যমৃত্যু, খুনের অভিযোগ বিজেপির

Mysepik Webdesk: আজ থেকে প্রায় ছ’বছর আগে তমলুকের চণ্ডীপুরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সভামঞ্চে চড় মেরেছিল দেবাশিস আচার্য নামে এক যুবক। এরপর বাংলার বিধানসভা ভোটের আগে ও ভোটের সময় তাকে শুভেন্দু অধিকারীর হয়ে একাধিক কর্মসূচিতে দেখা গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার ওই যুবকের রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় শাসক দলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে বিজেপি। তৃণমূলের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত খুনের অভিযোগ এনেছে বিজেপি। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন: সেবক-রংপো টানেলে ভয়াবহ ধস, মৃত ২ শ্রমিক, আহত ৫

দেবাশিসের বন্ধুরা জানিয়েছে, গত বুধবার রাত সাড়ে ন’টা নাগাদ দেবাশিস তার দুই বন্ধুর সঙ্গে ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কের কাছে নেতাজিনগর এলাকায় চা খেতে যায়। মোবাইলে কথা বলতে বলতে সে বাইক নিয়ে বেরিয়ে যায়। তারপর থেকেই তার আর কোনও হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না। তার ফোনও বন্ধ ছিল। এরপরেই বৃহস্পতিবার সকালে রাস্তার ধরে একটি ঝোপের পাশ থেকে দেবাশিসের দেহ উদ্ধার করা হয়। দেহটি পূর্ব মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তার দেহে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ছিল। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের ফল ঘোষণা জুলাইয়ের মধ্যে, জানালেন মমতা

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে চণ্ডীতলায় তৃণমূলের একটি জনসভায় বক্তব্য রাখছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময় মঞ্চে উঠে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চড় মারে ওই যুবক। ওই ঘটনার পরেই সেখানে উপস্থিত তৃণমূল কর্মীরা মারধর করে দেবাশীষকে। হাসপাতালেও ভর্তি করতে হয়েছিল তাকে। যদিও পরে দেবাশিসের বাবা-মা কালীঘাটে এসে ছেলের হয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন। পরে ক্ষমা চায় দেবাশিসও। এরপর অবশ্য তার বিরুদ্ধে আর কোনও আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *