নৃশংস! ডাইনি অপবাদে মহিলার গলা কেটে খুন, তারপর কাটা মুন্ডু দিয়ে হল পুজো

Mysepik Webdesk: মাত্রাছাড়া নৃশংসতা। সাক্ষী থাকল অসমের দোকমা থানার অন্তর্গত রহিমপুর গ্রামের মানুষ। বছর পঞ্চাশের বিধবা মহিলাকে ডাইনি সন্দেহে তার গলা কেটে খুন করা হল। শুধু তাই নয়, ওই মহিলাকে খুন করার পর সেই মাথা নিয়ে শয়তানের উদ্দেশ্য উৎসর্গ করে কয়েকজন গ্রামবাসী। তারপর রাতভর চলল প্রার্থনা। পরে নদীর ধরে দেহ নিয়ে গিয়ে পাহাড়ের দিকে ছুড়ে ফেলে দিল তারা।

আরও পড়ুন: রাহুল গান্ধীর পর এবার তৃণমূলের প্রতিনিধি ডেরেককে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ধাক্কা

গ্রামবাসীদের দাবি, ওই বিধবা মহিলা আসলে ডাইনি, তার জন্যই নাকি গ্রামের অন্য এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, শুধু ওই মহিলাই নয়, মহিলাকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন আরও এক ব্যক্তি। ২৮ বছরের ওই তরুণ শিক্ষক বার বার বোঝাতে চেষ্টা করেছিলেন যে এভাবে কুসংস্কারের বশে হত্যাকাণ্ড ঘটানো দণ্ডনীয় অপরাধ। তাকেও খুন করে তার দেহ ফেলে দিয়েছে ওই বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি তুললেন আইনজীবীরা

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতার নাম রমাবতী হালুয়া। ঘটনার সময় তিনি বাড়িতেই ছিলেন। হটাৎ করে কয়েকজন গ্রামবাসী ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার বাড়িতে চড়াও হয়। সেখানেই ওই মহিলা এবং প্রতিবাদী যুবককে গলা কেটে খুন করে দুষ্কৃতীরা। পুলিশকে গ্রামের মানুষ জানিয়েছে, রমাবতী নাকি ডাইনি। সে নানা মহিলার উপর ভর করে তাদের নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে, এবং সে নিজের মতো তাদেরকে দিয়ে কাজ করতে পারে। এই ঘটনার জেরে ওই গ্রাম থেকে ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *