ইছামতীতে বিসর্জন বসিরহাটের ঐতিহ্য: করোনায় পড়ল ছেদ

অতনু বসু “ঠাকুর থাকবে কতক্ষণ?/ ঠাকুর যাবে বিসর্জন।” ষষ্ঠীতে বোধনের পর থেকে সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমী তিনদিন অনেক আনন্দের পর আসে বিজয়া। বাঙালির প্রাণের উৎসবের শেষদিন। মানুষের মনখারাপের দিন কারণ এবার যে মায়ের কৈলাস ফিরে যাওয়ার দিন। তাই সিঁদুরে রাঙিয়ে মাকে বিদায় দিতে প্রস্তুত সকল বাঙালি। উত্তর চব্বিশ পরগনার সীমান্ত শহর বসিরহাটের সকল জনগণ কিন্তু এই বিদায়বেলাকেও আনন্দময় করে রাখতে

Read more

বিষ্ণুপুর দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসবের এবারের থিম শতবর্ষে সত্যজিৎ

তিরুপতি চক্রবর্তী বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর শহরের একটি দুর্গাপুজোর কথা বলব। বিষ্ণুপুর শহরের একটি বারোয়ারি দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি, ছিন্নমস্তা মন্দিরের পাশে বা বিখ্যাত কামান  দলমাদল দেখতে দেখতে আপনি এসে পড়বেন এই মণ্ডপে। ১৮ বছরে তাদের এই মাতৃ আরাধনা। কিন্তু এই অল্প সময়ে তারা জেলার মধ্যে উল্লেখযোগ্য নাম করে নিয়েছে। কারণ তাদের উল্লেখযোগ্য শিল্পভাবনা। প্রতিবছর তাদের আরাধনা বিশেষ তারিফ পায়। এবারও তার

Read more

ঝাড়খণ্ড নীচুবাজারের মাড়োয়ারিদের দুর্গাপুজো

রীনা ভৌমিক ভোজুডি এক স্বয়ংসম্পূর্ণ রেল কলোনি। রেলের কারণে বাজার হাটের প্রাচুর্য আছে। নীচুবাজারের রেল কলোনি ঘেঁষে যে পাবলিক প্লেস, সেখানে এককালে মাড়োয়ারিরা রমরমা ব্যবসা চালাতেন। এখন তাদের বংশধরেরা চালান। কিছু রেলকর্মী ও মাড়োয়ারি ব্যবসায়ী মিলে নীচুবাজারে দুর্গাপুজোর স্থাপনা করেন। এখানে পুজোও বিশেষ ধূমধামের সঙ্গে পালন করা হয়। নীচুবাজার থেকে কয়েক পা এগোলেই সিআরপিএফ কলোনি। এই কলোনিকে গোরখাখুলিও বলা হয়।

Read more

আমার ঘোরা বাংলাদেশের গ্রামের পুজোর পিছুডাকা দিনগুলি

BD Durga

সিদ্ধার্থ অভিজিৎ (বাংলাদেশ) ১ আমি ২০০২ সালকে আমার শৈশবের শুরু বলে মনে করি। কারণ, আমার স্মৃতির যাত্রা ২০০২ থেকেই। সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি থানার একটা প্রত্যন্ত গ্রামে আমার জন্ম। শহর থেকে এলাকাটা ঢের দূরে, যোগাযোগ ব্যবস্থাও সেসময় ছিল একেবারে নড়বড়ে। আধুনিকতার ছোঁয়া তখন কেন, এখনও পর্যন্ত ক্ষীণ। আমার গ্রাম ও তৎপার্শ্ববর্তী এলাকায় নানা ধর্ম-নানা জাতির সহবস্থান। আমার বাল্যকাল কেটেছে এই গ্রামে।

Read more

দেবী যাক বিসর্জনে

গৌতম চট্টোপাধ্যায় “ডম্বরু গুরু গুরু ঐ শোনা যায় / ভোলানাথ এলো বুঝি নিতে গিরিজায়” ফিল্ম (জয়া)-এর এই গানও যেন কি করে উমা আগমনের গান হয়ে গেছে! উমা এসেছে পিত্রালয়ে, উষ্ণ মহেশ্বরের কি আর তর সয়! সেও ভাবছে ভাদর আশ্বিন মাসে / ভ্রমর বসে কাঁচা বাঁশে / আর না থাকিও বাপের ঘরে / বধূ হে!” গিরিজায়া চৌদোলার ক্যারাভান সাজিয়ে এসে দাঁড়াবে

Read more

বোলপুরের অনতিদূরে সেরান্দী গ্রামের পটের দুর্গাপুজো যেন এক জাঁকহীন জৌলুস

তিরুপতি চক্রবর্তী বোলপুর থেকে কুড়ি-একুশ কিলোমিটার দূরের গ্রাম হাটসেরান্দী। লোকে কেবল সেরান্দী বলে। এই গ্রামে পটের দুর্গাপুজো হয়। সপ্তমীর দিন সকালে গোটা গ্রামের লোক একসঙ্গে সব পুজোর দোলা আনতে যায় গ্রামের মুখে এক কাঁদরে। সে এক বিশাল আয়োজন। গ্রামের বেশিরভাগই বাড়ির পুজো। তার মধ্যে ছ’টা বাড়িতে পটের দুর্গা হয়। সেও এক এক প্রান্তে। আরও পড়ুন: শান্তিপুরের প্রথম বারোয়ারি পুজো সূত্রাগড়

Read more
1 2 3 5