রবীন্দ্রনাথ-বিবেকানন্দ ভারতাত্মার দুই স্তম্ভ

Rabindranath Vivekananda

তরুণ গোস্বামী কাছাকাছি পাড়াতে থাকতেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আর নরেন্দ্রনাথ দত্ত। রবীন্দ্রনাথ দু’বছরের বড় নরেন্দ্রনাথের চেয়ে। জন্মেছিলেন ১৮৬১-তে। তাঁদের সম্পর্ক কেমন ছিল? কিছু লেখক ও প্রাবন্ধিকের লেখনী তাঁদের করে তুলল ক্যাসিয়াস ক্লে আর সনি লিস্টন। বাঙালি যেহেতু বিতর্ক পছন্দ করে, তাই গোগ্রাসে তাঁদের লেখা পড়তে লাগল। কিন্তু নিরপেক্ষভাবে ইতিহাস চর্চা করল না। নরেন্দ্রনাথের রবীন্দ্রনাথের প্রতি ছিল অগাধ শ্রদ্ধা, নইলে শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণকে

Read more

যে রয় মনে

Rabindranath

দীপান্বিতা হাজরা “উতল ধারা বাদল ঝরে সকল বেলা একা ঘরে।” গুনগুন গাইছি আর জানালায় সারাদিন বৃষ্টি দেখতে ভারি ভালো লাগছে। আমার সারাদিনের একলা থাকার মধ্যে বৃষ্টি যেন এক জোর করে ঢুকে পড়া এক বন্ধু। আরও পড়ুন: প্রয়োগ বিলাসী রবীন্দ্রনাথ: শিলাইদহ অধ্যায় (ক্রিইইং ক্রিইইং) ওমা আত্রেয়ী ফোন করছে, ‘হ্যালো কুঁড়ি বল’ আত্রেয়ী— শোনো না মুনদি সামনেই তো বাইশে শ্রাবণ। কোন গানটায়

Read more

রবীন্দ্রনাথ, গীতাঞ্জলি এবং নোবেল প্রাপ্তি

Nobel

দেবব্রত হাজরা ১৯১৩ সালের ১৩ নভেম্বর। সুদূর সুইডেনের রাজধানী স্টকহোম শহর থেকে সংবাদ সংস্থা ‘রয়টার’-এর একটা ছোট্ট টেলিগ্রাম সারাপৃথিবীর সঙ্গে ভারতবর্ষে পৌঁছল। তাতে চমকপ্রদ খবরটি ছিল এরকম— “Stockholm, Thursday, Nov. 13, The Nobel Prize for Liturature for 1913 has been awarded to the Indian Poet Rabindra Nath Tagore.” খবরটি এই যে, ভারতীয় কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৩ সালের জন্য সাহিত্যে নোবেল

Read more

অন্তরতর

Rabindranath

ড. তপারতি গঙ্গোপাধ্যায় আমার রবীন্দ্রনাথ পড়া শুরু অনেক বড় হয়ে। ‘সহজপাঠ’-এর পরে অনেকটা ফাঁক ছিল। সেখানে অবনীন্দ্রনাথ এসেছেন। তারপর গানের খাতায় কিছু ঝরনার মতো শব্দবন্ধ এবং অমল ও দইওয়ালা। গানের মধ্যেই প্রথম চেনা। সহজ গান, কঠিন গান, বিভিন্ন ভাগ পেরিয়ে এল ‘নটীর পূজা’। তখন আমি ক্লাস থ্রি। “আমার সকল দেহের আকুল রবে মন্ত্রহারা তোমার স্তবে / ডাইনে বামে ছন্দ নামে

Read more

মানকচুর জিলিপি ও রবীন্দ্রনাথ

Jilipi

শামিম আহমেদ “কচু কহে, গন্ধ শোভা নিয়ে খাও ধুয়ে, হেথা আমি অধিকার গাড়িয়াছি ভুঁয়ে।” রবীন্দ্রনাথের অন্যতম প্রিয় মিষ্টি ছিল মানকচুর জিলিপি। জিলিপি ভারতের সর্বত্র পাওয়া যায়। মোটামুটিভাবে জাতীয় মিষ্টান্ন বলে গণ্য করা যায় জিলিপিকে। জাতীয়তাবাদ প্রসঙ্গে ১৯০৮ সালে এক বন্ধুকে কবি লিখেছিলেন, “হিরের দামে ঠুনকো কাচ কিনতে আমি নারাজ। জীবদ্দশায় মানবতার ওপর দেশপ্রেমকে তাই ঠাঁই দিতে চাই না।” ন্যাশনালিজম ও

Read more

‘বিসর্জন’-এর কথায়

Bisorjon

স্বপ্না রায় সেই কবে লিখেছিলেন ‘বিসর্জন’ নাটক। আকাশের নীলে আর নদীর জলে আজও সে নাম লেখা হয়ে আছে। তবে প্রতিমা বিসর্জন যে এ নাটকের শেষ কথা নয়, রবীন্দ্রনাথ নিজেই বলেছেন সে কথা। বলেছেন— “…কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা হল জয়সিংহের আত্মত্যাগ; কারণ তখনই রঘুপতি সুস্পষ্টভাবে এই সত্যকে অনুভব করতে পারল যে, প্রেম হিংসার পথে চলে না, বিশ্বমাতার পূজা প্রেমের দ্বারাই

Read more
1 2 3