Latest News

Popular Posts

বিড়ালের মাথা, মানুষের মাংস খেয়ে বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা! সামনে এল আফগান রিহ্যাবের ভয়ঙ্কর ছবি

বিড়ালের মাথা, মানুষের মাংস খেয়ে বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা! সামনে এল আফগান রিহ্যাবের ভয়ঙ্কর ছবি

Mysepik Webdesk: আফগানিস্তান দখল করেছে তালিবান। রাজধানী কাবুলের দখল নিয়েই তালিবান ঘোষণা করেছিল, দেশকে ড্রাগ বা নেশা মুক্ত করে তোলা হবে। সেই উদ্দেশ্যেই নেশা ছাড়াতে আফগানিস্তানের বহু মাদকাসক্তকে পাঠানো হয়েছিল রিহ্যাবে। কিন্তু, সেই রিহ্যাবের যে বাস্তব ছবিটা এতদিন সামনে আসেনি, সেই ছবিটাই সম্প্রতি সামনে এনেছেন ডেনমার্কের এক সাংবাদিক। তিনি জানান, সম্প্রতি তিনি রিহ্যাব থেকে ছাড়া পাওয়া আবদুল নামে এক বন্দির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। তার সঙ্গে কথা বলে তিনি জানতে পারেন আফগান রিহ্যাবের ভয়ঙ্কর সব গোপন তথ্য।

আরও পড়ুন: হিজাব পরে মেয়েদের স্কুলে যেতে নিষেধ করার বিষয়টিকে ‘ভয়াবহ’ বলে বর্ণনা মালালার

আবদুল জানান, আফগানিস্তানের রিহ্যাবগুলিতে বন্দিদের সঙ্গে মোটেই মানুষের মতো ব্যবহার করা হয় না। তাদের ঠিকমতো খেতে পর্যন্ত দেওয়া হয় না। খিদের জ্বালায় তারা কখনও ঘাস আবার কখনও গাছের পাতা খেয়ে বাঁচার চেষ্টা করে। অনেক সময় তাদের খালিপেটেও দিনের পর দিন কাটাতে হয়েছে। শুধু তাই নয়, আবদুল ডেনমার্কের সাংবাদিককে জানিয়েছেন, তিনি এমনটাও দেখেছেন যে এক বন্দি খিদের জ্বালায় একটি বিড়াল মেরে তার গোটা মাথা কাঁচা চিবিয়ে খাচ্ছে। শুধু তাই নয়, এক বন্দিকে অন্য বন্দিরা খুন করে তার মাংসও সেদ্ধ করে খেতে দেখেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানে সন্ত্রাসের নতুন মুখ সানাউল্লা, ISIS -এর এই নেতার মাথার দাম শুনলে ভিমরি খাবেন

প্রসঙ্গত, সারা বিশ্বজুড়ে যেসব নিষিদ্ধ মাদক রয়েছে, তার সিংহভাগটাই আসে আফগানিস্তান থেকে। মূলত হিন্দুকুশ পাহাড় এলাকায় চাষ হয় হেরোইনের। তালিবান আফগানিস্তানের ক্ষমতায় আসর পর থেকেই রাশ টানার চেষ্টা করেছে মাদক রপ্তানি ও সেবনে। এছাড়াও আফিম চাষে লাগাম টানার কথা ঘোষণা করেছিল তালিবানের মুখপাত্র জাবিউল্লা মুজাহিদ। যদিও তা ছিল শুধু কথার কথা। এখনও রীতিমতো ইউরোপের দেশগুলিতে গোপনে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য রপ্তানি করে চলছে আফগানিস্তান। ফলে, ইউরোপের পাশাপাশি মাদকাসক্ত হচ্ছেন আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষও।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *