মহাকাশে লঙ্কার চাষ! নতুন মাইলফলক তৈরি করল নাসা

Mysepik Webdesk: মহাকাশে পৃথিবীর চারিদিকে ঘুরতে থাকা আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে বসেই সবুজ-লাল লঙ্কায় কামড় দিলেন আমেরিকার অ্যাস্ট্রোনট মেগান ম্যাকআর্থার। না, সেই লঙ্কা পৃথিবী থেকে মহাকাশে পাঠানো হয়নি। উল্টে, জিরো গ্র্যাভিটিতে অর্থাৎ সম্পূর্ণ ভরশূন্য অবস্থায় আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রেই চাষ করা হয়েছে সেই লঙ্কার। আর এই ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই নাসার সাফল্যের মুকুটে জুড়ে দিল আরও একটি সাফল্যের পালক।

আরও পড়ুন: জালিয়াতি রুখতে ATM থেকে টাকা তোলার ক্ষেত্রে বড়োসড়ো পরিবর্তন আনলো স্টেট ব্যাঙ্ক

K. Megan McArthur - Wikipedia

‘শুক্রবারের ভূরিভোজ’ ঠিক এই শব্দেই টুইট করেছেন বর্তমানে আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনের বাসিন্দা, আমেরিকার মহাকাশচারী মেগান ম্যাকআর্থার। এই মুহূর্তে তাঁর সঙ্গে মহাকাশে রয়েছেন আরও ৬ মহাকাশচারী। মহাকাশে বসেই তাঁদের সকলের জন্যই মেক্সিকান ফুড ট্যাকো বানিয়েছেন মেগান। সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন তিনি। তাতে দেখা যাচ্ছে ট্যাকোর ছবি, যা ভরশূন্য অবস্থায় ভাসছে মহাকাশ কেন্দ্রের ভেতর। ট্যাকোর ভেতর স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে সবুজ-লাল লঙ্কার টুকরো, যা উৎপাদিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের ভেতরেই।

আরও পড়ুন: স্মার্টফোনের ব্যাটারির চার্জ দীর্ঘস্থায়ী করার সহজ উপায়

যদিও ‘লঙ্কাকান্ড’ এখানেই শেষ নয়। নাসা আগামীদিনে আরও বড়ো মিশন সংঘটিত করতে চলেছে, এটা শুধুমাত্র তার প্রাথমিক সাফল্য। নাসা জানিয়েছে, মহাকাশচারীদের জন্য স্পেস স্টেশনে মূলত প্যাকেজড ফুডই পাঠানো হয়। আগামী দিনের নাসার লক্ষ্য, চাঁদ বা মঙ্গলে মানুষ পাঠানো। দীর্ঘদিন ধরে মহাকাশচারীদের সেখানে থাকতে হলে সেক্ষেত্রে আর প্যাকেজড ফুডে চলবে না। মহাকাশচারীদের আগামী দিনে খাবার উৎপাদনেও আত্মনির্ভর করার পরিকল্পনা রয়েছে নাসার। এই নিয়ে সেই ২০১৫ সল্ থেকে গবেষণা চালাচ্ছে নাসা। ইতিমধ্যেই ১০ ধরনের সব্জিও চাষ হয়েছে মহাকাশে। সেই তালিকাতেই এবার যুক্ত হল লঙ্কা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *