জাপানের সমুদ্র সীমায় চিন রণতরীর অনুপ্রবেশ, সংঘাতের আশঙ্কা!

Mysepik Webdesk: প্রতিবেশী দেশের ভূখন্ড নিজেদের দখলে নেওয়া চিনের অনেক পুরোনো অভ্যেস। ফিলিপিন্সের পর এবার জাপানের সমুদ্রসীমায় অনুপ্রবেশ ঘটলো চিনা রণতরীর। এই ঘটনায় সুই দেশের মধ্যে সংঘাতের আশঙ্কা আরও বেড়ে যেতে পারে বলেই মনে করছেন আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, গত শুক্রবার জাপানের সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জের পাশে জাপানের সমুদ্রসীমায় ঢুকে পড়ে চিনের চারটি রণতরী। জাপানের সংবাদমাধ্যম কিওডো নিউজকে উদ্ধৃত করে স্পুটনিক জানিয়েছে, চলতি বছর এই নিয়ে জাপানের জলসীমায় অন্তত ৩৭বার অনুপ্রবেশ করেছে চিন সেনার টহলদারি জাহাজ।

আরও পড়ুন: ওড়ার সময় ভেঙে পড়ল ব্রিটিশ যুদ্ধ বিমান এফ-৩৫

প্রসঙ্গত, পূর্ব চিন সাগরে জাপানের সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জকে বরাবর নিজেদের বলে দাবি করে এসেছে চিন। গত ফেব্রুয়ারি মাসে চিন সরকার একটি নতুন আইন পাশ করে নিজেদের উপকূলরক্ষী বাহিনীর হাতে আরও ক্ষমতা প্রদান করে বেইজিং। ফলে, আগামী দিনে সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জের পাশে চিনের উপকূলরক্ষী বাহিনী আরও আগ্রাসী হয়ে উঠবে বলে আশঙ্কা প্রতিরক্ষা বিশ্লেষকদের।

আরও পড়ুন: বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহরের তকমা পেল লাহোর

উল্লেখ্য, সমুদ্রে চিনা নৌবহরের আগ্রাসী কার্যকলাপের কথা মাথায় রেখে চলতি বছরের মার্চ মাসে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে আমেরিকা ও জাপানের উপকূলরক্ষী বাহিনীর মধ্যে। তাইওয়ানে আমেরিকার ডি ফ্যাক্টো দূতাবাস ‘আমেরিকান ইন্সটিটিউট’ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, দুই দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত মউয়ে উপকূলরক্ষী বাহিনীর মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা, তথ্যের আদানপ্রদান ও কৌশলগত সহযোগিতার বিষয়টি রয়েছে। কয়েকদিন আগেই ফিলিপিন্সের ‘এক্সক্লুসিভ ইকোনোমিক জোন’ তথা বিশেষ অর্থনৈতিক ক্ষেত্রের মধ্যে ঢুকে পড়ে চিনা উপকূলরক্ষী বাহিনী। ফিলিপিন্সের ফৌজের জন্য রসদ নিয়ে যাওয়া দু’টি নৌকার উপর জলকামান দিয়ে হামলা চালায় তারা। এই ঘটনায় কেউ আহত না হলেও দুই দেশের মধ্যে সংঘাতের আশঙ্কা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *