কলকাতায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, তড়িঘড়ি করে খোলা হচ্ছে সেফ হোম

Mysepik Webdesk: কলকাতায় দুর্গাপুজোর ভিড় দেখেই চোখ কপালে উঠেছিল চিকিৎসকদের। আশঙ্কা করা হয়েছিল, পুজো শেষ হতে না হতেই শহরে হু হু করে বাড়তে পারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। চিকিৎসকদের সেই আশঙ্কাই এবার সত্যি হল। গতকালের তুলনায় শুক্রবার আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়ল। রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল কলকাতা শহরে মত আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৬০। সেই সংখ্যা শুক্রবার বেড়ে হয়েছে ৩১৯। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শহরের সেফ হোমগুলি খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে পুরসভা।

আরও পড়ুন: ১০০ কোটির ভ্যাকসিন রেকর্ড ভারতের, সাফল্যের ‘কারণ’ জানালেন দিলীপ ঘোষ!

আক্রান্তের সংখ্যা তো রয়েছেই। তবে, এই পর্যায়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তা বাড়াচ্ছে টিকাপ্রাপ্তদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা। পরিসংখ্যান বলছে, আগের তুলনায় এবার টিকা না নেওয়া ব্যক্তিদের পাশাপাশি টিকা নেওয়া ব্যক্তিরাও আক্রান্ত হচ্ছেন। শহরে আক্রান্তদের মধ্যে ৫০ শতাংশ ব্যক্তিরই দু’টি করে টিকা নেওয়া হয়ে গিয়েছে। চিকিৎসকরা অবশ্য বলছেন, সঠিকভাবে করোনাবিধি না মেনে চলার জন্যই এই ঘটনা ঘটছে। অনেকেই ভাবছেন, টিকা নেওয়া হয়ে গিয়েছে, তাই আক্রান্ত হওয়ার ভয় নেই। কিন্তু, টিকার দু’টি ডোজ নেওয়া থাকলেও সেই ব্যক্তিকে মানতে হবে সঠিক করোনাবিধি, অন্যথায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়।

আরও পড়ুন: কাজে ফিরলেন আন্দোলনকারীদের একাংশ, ছন্দে ফিরছে আর জি কর হাসপাতাল

শুক্রবার কলকাতা পুরসভার প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় কলকাতায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে ৩১৯ জন। এর মধ্যে কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই আক্রান্ত ২৪২ জন। পাশাপাশি সরকারি হাসপাতাল ও বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে সংখ্যাটা ৭৭। ৩১৯ জনের মধ্যে ১৫০ জন ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ় নিয়েও আক্রান্ত হয়েছেন। প্রথম ডোজ় নিয়েছেন এমন আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ জন। ভ্যাকসিন নেননি এমন আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ জন। চিকিৎসকদের মতে, এটা তৃতীয় ঢেউ কিনা, সেটা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে, আগামী দিনগুলোতে নাইট কার্ফু আগের মতোই ফের বজায় রাখতে হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *