Latest News

Popular Posts

ছ’ বছরে দশটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় ৩ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে দেবাঞ্জন, প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য

ছ’ বছরে দশটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় ৩ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে দেবাঞ্জন, প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য

Mysepik Webdesk: পরতে পরতে রহস্য মিশে রয়েছে কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে। কসবার জাল ভ্যাকসিনের কাণ্ডের তদন্তে নেমে দেবাঞ্জনকে গ্রেফতার করার পর তাকে জেরা করে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য জেনেছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, গত ছ’ বছর ধরে নিজের প্রায় ১০টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্তত ৩ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে দেবাঞ্জন দেব। ইতিমধ্যেই তদন্তকারী আধিকারিকরা ব্যাঙ্কের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার অ্যাকাউন্টের যাবতীয় লেনদেনের হিসেব খতিয়ে দেখেছে। শুধু তাই নয়, দেবাঞ্জনের কসবার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করেছেন বিএসএফ-এর একটি ইউনিফর্ম। মিলেছে দেবাঞ্জনের নামে সিলভার ব্যাজও।

আরও পড়ুন: রাজ্যপাল-সহ তুষার মেহেতার অপসারণের দাবি নিয়ে রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হতে চলেছে তৃণমূল

উদ্ধার হওয়া পোশাক ও ব্যাজ বাজেয়াপ্ত করে আধিকারিকরা জানার চেষ্টা করছেন, ভ্যাকসিন জালিয়াতির পাশাপাশি দেবাঞ্জন আরও কোনও জাল ব্যবসা ফেঁদেছিল কিনা। তদন্তকারী আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, ভুয়ো নথি দেখিয়ে দেবাঞ্জন কলকাতা পুরসভার প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট দফতরের নামে সাতটি অ্যাকাউন্ট খুলেছিল। সেখান থেকে একাধিক জায়গায় টাকা সরানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু কোথায় কোথায় সে টাকা সরিয়েছে, সেই বিষয়ে জানার চেষ্টা করছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ৭ দিনের মধ্যে নম্বর-সহ মেধা তালিকা প্রকাশ করতে হবে, নির্দেশ হাইকোর্টের

অন্যদিকে দেবাঞ্জনের এই কর্মকান্ডে যুক্ত আরও এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত ব্যক্তির নাম ইন্দ্রজিৎ সাউ। কসবায় যে ভুয়ো ভ্যাকসিন ক্যাম্পটির আয়োজন করা হয়েছিল, সেই আয়োজনের গোটা বিষয়টি দেখাশোনা করত ইন্দ্রজিৎ। পাশাপাশি আশীষ সাউ নামে আরও এক ব্যক্তিকে খুঁজছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, দেবাঞ্জনের ভুয়ো কাজকর্মের যাবতীয় নথি আশীষই তৈরি করে দিত।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *