বিপর্যস্ত কেরালা, প্রবল বৃষ্টি ও ভূমিধসে এখনও পর্যন্ত মৃত ১৮

Mysepik Webdesk: একটানা প্রবল বৃষ্টিপাত আর তার ফলে সৃষ্টি হওয়া ভূমিধসে বিপর্যস্ত কেরালার একাংশ। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার হয়ে এখনও পর্যন্ত কেরালায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। মৃত্যুর পাশাপাশি বহু মানুষের নিখোঁজ হওয়ার খবর মিলেছে। বিপদগ্রস্থ মানুষদের উদ্ধার করতে ইতিমধ্যেই সেনার সাহায্য নিয়েছে কেরালা সরকার। জোরকদমে চলছে উদ্ধারকার্য। কেরালার কোট্টায়াম, ইডুক্কি এবং পথনামথিট্টার মতো পাহাড়ি এলাকাগুলিতে নতুন করে ফের ভূমিধসের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। আতঙ্কে রয়েছেন এলাকার মানুষ।

আরও পড়ুন: কৃষক আন্দোলনের মঞ্চের কাছে হাত-পা কেটে খুন, এলাকায় চাঞ্চল্য

শুক্রবার মাঝরাত থেকে কেরালার ৬ জেলায় শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। ইতিমধ্যেই লাগাতার প্রবল বর্ষণের ফলে দক্ষিণ এবং মধ্য কেরালার বিস্তীর্ণ এলাকায় ঘরবাড়ি ভেঙে গিয়েছে। ভেসে গিয়েছে প্রচুর গবাদি পশু। ভূমিধসের ফলে কোট্টায়াম জেলার কোট্টিক্কালে মৃত্যু হয়েছে সাত জনের। বেশ কয়েকটি বাড়ি ভেসে গিয়েছে ওই এলাকায়। এছাড়াও কাঞ্জিরাপল্লীতে একজনের ও থোডুপুজাতে দুই জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। ইতিমধ্যে উদ্ধারকাজের জন্য নেমেছে সেনা। বায়ুসেনার হেলিকপ্টারের সাহায্যে দুর্গতদের এয়ারলিফট করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: দেশবাসীকে বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা মোদি-মমতার

অতিবৃষ্টির জেরে রাজ্যের অনেকগুলি নদীতেই জল বইছে বিপদসীমার উপর দিয়ে। এদিকে বৃষ্টি আরও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া অফিস। ইতিমধ্যে লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে কেরলেপ এর্নাকুলাম, ইদুক্কি, ত্রিচূড়, কোট্টায়াম, পত্থনমথিট্টা, পলক্কড় জেলায়। কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে তিরুঅনন্তপুরম, আলপ্পুঝা, মলপ্পুরম, কোঝিকোড়, কোল্লাম, ও ওয়ানাড় জেলায়। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন জানিয়েছেন, কোথাও কোথাও পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক। তিনি বলেন, মানুষের প্রাণ রক্ষা করতে আমরা সবরকমের চেষ্টা করব। সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বায়ুসেনার কাছেও সাহায্য় করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যেই একটি জরুরি বৈঠকও সেরেছেন তিনি। তবে মৌসম ভবন জানিয়েছে, আজ, রবিবার থেকে কিছুটা কমবে বৃষ্টি।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *