‘দিব্যাঙ্গ’ অ্যাথলেটরা দেখা করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে, প্রকাশ হল ভিডিয়ো

Modi

Mysepik Webdesk: টোকিও প্যারালিম্পিকে ঐতিহাসিক পারফরম্যান্স করে ভারত ১৯টি পদক জিতেছে। এর মধ্যে ছিল ৫টি সোনা, ৮টি রুপো এবং ৬টি ব্রোঞ্জ পদক। যেকোনও প্যারালিম্পিকে এটিই ভারতের সেরা পারফরম্যান্স। দল ফেরার পর বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেখা করেন। রবিবার বৈঠকের ভিডিয়ো প্রকাশ করা হয়। প্যারালিম্পিকে রুপোর পদক জয়ী নয়ডার ডিএম সুহাস ললিনকেরে যথীরাজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সময় জানান যে, তাঁকে তিন বার স্কুলে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হয়নি। অলিম্পিকে রুপো জেতার পর এখন তিনি প্রধানমন্ত্রীর পাশে বসার সুযোগ পেয়েছেন। মোদি বলেন, ভারতীয় প্যারা ক্রীড়াবিদরা টোকিওতে ভালো পারফর্ম করেছেন। ভবিষ্যতেও তাঁরা যাতে ভালো পারফর্ম করতে পারেন, তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৩০ কোটি দেশবাসী প্যারা অ্যাথলেটদের সঙ্গে আছেন।

আরও পড়ুন: টি-২০ বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা শ্রীলঙ্কার

টুর্নামেন্টের সময়ও প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়াবিদদের পারফরম্যান্সের উপর নজর রাখেছিলেন। তাঁদের ক্রমাগত উৎসাহিতও করেছিলেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিটি পদক বিজয়ীকে অভিনন্দন জানান এবং ফোনে কথাও বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা হওয়া সব খেলোয়াড়ই বলেছেন, এটা তাঁদের জন্য গর্বের মুহূর্ত। খেলোয়াড়রা জানান, আগে সবাই তাঁদের প্রতিবন্ধী বলত। প্রধানমন্ত্রী তাঁদের ‘দিব্যাঙ্গ’ বলে সম্বোধন করে সম্মান বাড়িয়েছেন তাঁদের।

আরও পড়ুন: দু’টি ডোজ নিলেই ১২ সেপ্টেম্বর থেকে UAE যেতে পারবেন ভারতীয়রা

টোকিওয় পদক জিততে না পারা ক্রীড়াবিদরাও সম্মাননা অনুষ্ঠানে পৌঁছেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁদের উদ্দেশ্যে বলেন, এই কথা মন থেকে দূরে সরিয়ে রাখুন যে আপনারা মেডেল জিততে পারেননি। আপনারা সেরাটাই দিয়েছেন এবং তা দেশের জন্য গর্বের বিষয়। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ভারতীয় প্যারা ক্রীড়াবিদরা টোকিওতে থেকে ভারতের জন্য গর্বের মুহূর্ত নিয়ে এসেছেন।

কথোপকথনের সময় একজন খেলোয়াড় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে বলেন, পদক না জেতার জন্য আমি দুঃখিত, কিন্তু এই পরাজয় আমাদের আরও শক্তিশালী করেছে। আমরা পরের বার আবার জেতার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করব। পদক না পাওয়া পর্যন্ত চেষ্টার ক্রুটি রাখব না। বিজিতদের মনোবল বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তি হেরে জয়ী হওয়া। অতএব, পরাজয়ের কারণে মনোবল কমানোর প্রয়োজন নেই।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *