আপনি কি ঘুমের সমস্যায় ভুগছেন? খাদ্যতালিকায় রাখুন এই খাবারগুলো

Mysepik Webdesk: সুস্থ থাকতে পর্যাপ্ত ঘুম ভীষণ জরুরি। কারণ আমরা যে সময়ে ঘুমায় তখন মস্তিস্ক সহ সমস্ত শারীরিক অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বিশ্রাম পায়। কিন্তু অনেকেই দেখা যায় অনেক চেষ্টা করেও সারা রাত ঘুমোতে পারে না। এর ফলে নানান রকম সমস্যা দেখা দেয়। ঘুম না হওয়ার কারণ মূলত অবসাদ, দুশ্চিন্তা, স্ট্রেস বা দীর্ঘক্ষণ ধরে মোবাইল বা কম্পিউটার ব্যবহার করা। ঘুম না হওয়ার সমস্যাকে বলা হয় ইনসমনিয়া।

আরও পড়ুন: প্রচণ্ড গরমের মধ্যে রোযায় যেভাবে সুস্থ থাকবেন

ঘুম না আসা এখন একটি সাধারণ সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই দেখা যায় রাত্রে ঠিকঠাক ঘুম না হওয়ার কারণ ঘুমের ওষুধ খান। তবে নিয়মিত ঘুমের ওষুধ খাওয়া শরীর পক্ষে খুব ক্ষতিকর। এর ফলে নানা রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়। তবে আপনার খাদ্যতালিকায় কিছু খাবারের পরিবর্তন ঘটালে খুব সহজেই ঘুম না হওয়ার সমস্যা কমে যায়।

১. হালকা গরম দুধ: ছোটবেলা থেকেই শুনে আসছি ঘুমোতে যাওয়ার আগে গরম দুধ খাওয়ার কথা। গরম দুধ শরীর পক্ষে খুব উপকারীও। এক্ষেত্রে বেশিরভাগ চিকিৎসকই পরামর্শ দেন রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধ পান করার। দুধের মধ্যে থাকা অ্যমিনো অ্যাসিড ও ট্রিপটোফ্যান যা ঘুমের পক্ষে খুব উপযোগী। তাছাড়া দুধের যে বায়োঅ্যাক্টিভ ধর্ম তা স্ট্রেস কমিয়ে ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুন: যেভাবে প্রতিদিন কমাবেন এক হাজার ক্যালোরি

২. আখরোট: আখরোট এমন এক প্রকার বাদাম যার মধ্যে ভরপুর পুষ্টিগুণ রয়েছে। শরীরের হাজারও সমস্যা দূরে রাখতে চিকিৎসকরা আখরোট খাওয়ার পরামর্শ দেন। আখরোটে মেলাটোনিন নামক একটি উপাদান থাকে যা ঘুমের সমস্যাকে দূরে রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। তাই রাতে যাদের ভাল ঘুম হয় না, তারা খাদ্যতালিকায় আখরোট রাখলে ঘুমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

৩. পাকা কলা: কলা বিভিন্ন গুণাগুণে সমৃদ্ধ একটি ফল। এর পুষ্টিগুণ অধিক। কলাতে প্রচুর পরিমাণ ম্যাগনেসিয়াম, সেরোটোনিন ও মেলাটোনিন থাকে যা ঘুমের পক্ষে উপযোগী। কলা ইনসমনিয়া রুখতে সাহায্য করে। তবে ঘুমোতে যাওয়ার আগে শুধু কলা খেতে ইচ্ছে না করলে কলা দিয়ে স্মুদি বানিয়ে খেতে পারেন।

৪. ডাবের জল: গরমের মধ্যে এক গ্লাস ডাবের জলের থেকে ভালো আর কিছু হতে পারে না। ডাবের জলে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম ও পটাশিয়াম রয়েছে যা পেশীকে শিথিল করে ও ভালো করে ঘুমোতে সাহায্য করে।

৫. মধু: মস্তিষ্কে ওরেক্সিন নামের একটি নিউরোট্রান্সমিটার আছে যা মতিষ্ককে সচল রেখে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। রাতে ঘুমানোর আগে মধু খেলে মস্তিষ্কে গ্লুকোজ প্রবেশ করে এবং ওরেক্সিন উৎপাদন বন্ধ করে দেয় কিছু ক্ষণের জন্য, যা আপনাকে দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে সহায়তা করবে।

৬. তুলসী: তুলসী পাতা বা তুলসী বীজ ঘুমের জন্য উপকারী। এর মধ্যে থাকে হাইড্রা অ্যালকোহলিক এক্সট্র্যাক্ট ও এসেন্সিয়াল অয়েল যা ঘুমের জন্য উপকারী।

৭. ওটমিল: ওটমিলে রয়েছে ঘুমে সহায়ক মেলাটোনিন। তাই রাতের খাবার হিসেবে ওটমিল খেলে একদিকে আপনার ওজনটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে, অন্য দিকে আপনার রাতের ঘুমটাও ভাল হবে।

তবে ভালো ঘুমের জন্যে মানসিক দুশ্চিন্তার পরিমাণ কমাতে হবে। রাত্রে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মোবাইল ও কম্পিউটার ব্যবহার কমটা হবে। সেই সঙ্গে ঘুমোতে যাওয়ার আগে কফি বা ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকতে হবে। এই অভ্যেসগুলো আপনাকে ভালো ঘুম হতে সাহায্য করবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *