১৭৫ বছরের পুরনো কাটোয়ার দত্তবাড়ির দুর্গাপুজো

পার্থ কর

কাটোয়ার গঙ্গার ধার সংলগ্ন একটি পাড়া হল নিচুবাজার, যা লোকের মুখে মুখে দাঁড়িয়েছে লিচুবাজার। ননি দাসের দোকান এখানকার একটি প্রখ্যাত দোকান। সে দোকান ছাড়িয়ে একটু এগিয়ে ডানহাতে যে গলি ঢুকে গেল, ওটা দিয়ে কিছুটা এগোলেই বিরাট আকারের দত্তবাড়ি। দত্তবাড়ির দুর্গাপুজো কাটোয়ার প্রাচীন ঐতিহ্যময় পুজোর প্রথম সারির একটি। ১৭৫ বছরের পুরনো এই পুজোয় একসময় জাঁকজমকে আয়োজনে অনন্য ছিল। বংশের একজন পূর্বপুরুষ ভগবান দত্ত এই পুজোর প্রচলন করেন। অবশ্য তখন এই পুজো হত তাদের কাটোয়ার হরগৌরী পাড়ার বাড়িতে। রথের দিন কাঠামোয় মাটি লাগানো আর মহালয়ায় চক্ষুদান দিয়ে সূচনা হত উৎসবের।

আরও পড়ুন: শান্তিপুরের বড় অদ্বৈত অঙ্গনে শারদীয়ায় পূজিতা হন দেবী কাত্যায়নী

পুজোর আচারে আর বিশেষ কিছু বিশেষত্ব ছিল না, এখনও নেই। শোনা যায়, বহু আগে নীলকণ্ঠ পাখি ওড়ানোর রেওয়াজ ছিল, আইনের কারণে তা এখন বন্ধ। তাছাড়া বিরল হয়ে এসেছে নীলকণ্ঠও। আগের দিনে পুজোর চারদিন ব্যাপী এলাকার সবাইকে পেটভরে ভোজ খাওয়ানো হত। সন্ধ্যায় থাকত গান-বাজনা নাটকের আসর। শতাব্দী পেরিয়ে এখন এই পুজোর জৌলুস অনেকটাই কমেছে, তবুও পরিবারের সদস্যরা চেষ্টা করেন ঐতিহ্যকে ধরে রাখার। এখনও আলোয় সেজে ওঠে দত্তবাড়ি, পুজোর দু’দিন আগে থেকেই। বিরাট এলাকা জুড়ে বিশাল বাড়ির প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে উপচে পড়ে আলো, আর তার রোশনাই ছড়িয়ে পড়ে উৎসবপ্রিয় প্রতিবেশীদের আঙিনায়। কিছুদিন আগে থেকেই রং করা চলছে এবছর। করোনার কারণে এবার সবকিছুই সীমিত আকারে হবে বলে জানা গেল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *