অভিনব ক্রীড়া উদ্যোগ: ছুটিতে এসে নিজগ্রামে খেলার মাঠ তৈরি করলেন ফৌজি লালচাঁদ জনি

ভিকমকোর, রাজস্থান: যদি মনের মধ্যে কিছু আলাদা করার ইচ্ছা থাকে, বাধা থাকা সত্ত্বেও সাফল্য নিজে থেকেই আসে। এমনই এক উদাহরণ স্থাপন করলেন নিজবাড়িতে দেড় মাসের ছুটি কাটাতে আসা নিকটবর্তী ভিয়াদিয়া গ্রামের ফৌজি লালচাঁদ জনি। সকালে সেই গ্রামের যুবকরা দৌড়াদৌড়ি করতেন। সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্য তাঁরা গাছের ডালে ঝুলে প্রস্তুতিও নিতেন। ফৌজি জনি এসব দেখে গ্রামে একটি খেলার মাঠ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: চলে গেলেন অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ১০ বার এভারেস্ট জয় করা পর্বতারোহী অ্যাং রিতা শেরপা

তিনি গ্রামে খেলার মাঠটি নির্মাণের জন্য সরপঞ্চ মোহনী দেবী, বুধরাম খিলারী, অধ্যক্ষ জয়প্রকাশ খিলারী, শিক্ষক পুনরাম, সহকারী প্রকৌশলী সাজানরাম ভাদু, জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার প্রেমসুখ বৈয়ার্ড সহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তির সঙ্গে আলোচনা করেন। তারপরে কিছু যুবক খেলোয়াড়ের মাঠ প্রস্তুত করার জন্য একত্রিত হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: করোনায় পিছিয়ে গেল ইন্ডোর হকি বিশ্বকাপ

তাঁদের দেখে অন্যান্য যুবকও এগিয়ে এলেন। সরপঞ্চ প্রতিনিধিরা বুধরাম বিষ্ণোই, রাজুরাম সাঁই, ধোনকলরাম পুনিয়া, জাভরিলাল ভাদু, ওমপ্রকাশ খিচাদ, বীরবলরাম খিলারী, রামনারায়ণ ভাদু, ওমপ্রকাশ পুনিয়া, বংশিলাল ভাদু, শিক্ষক ধনরাম খিলারী, পারস ভাদু, ভশু, ভাদু, ভাসু, সুভাষ গোদারা সহ কয়েক ডজন যুবক এতে যোগ দিয়েছিলেন।

অনেকে তাঁদের ট্র্যাক্টর সরবরাহ করেছিলেন। প্রায় ৫ বিঘা সরকারি জমি সমতলকরণ করা হয়। পাশাপাশি ক্রিকেটের মতো খেলাধুলার জন্য সিমেন্ট পিচ নির্মাণ, যুবকদের দৌড়ানোর জন্য রাউন্ড-আপ ফিল্ড, রেসলিং গ্রাউন্ড, জাম্পিং সহ আধুনিক কার্যক্রমের জন্য অন্যান্য সুযোগসুবিধা রয়েছে এখানে।

খেলার মাঠটি তৈরি হওয়ার পরে এখন গ্রামের বিভিন্ন জায়গা থেকে ৮০ জনেরও বেশি যুবক সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে সকাল ৫টা থেকে অনুশীলন করতে এখানে আসেন। গ্রামবাসীরা সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন। ফৌজি লালচাঁদ জানিয়েছেন যে, তিনি চান গ্রামের যুবকরা সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়ে দেশের সেবা করুক।

ক্রিকেট, কাবাডি, কুস্তি-সহ অন্যান্য গ্রামীণ ক্রীড়া প্রতিযোগিতাও আগামী কয়েক মাসে অনুষ্ঠিত হবে এখানে। এর সুবিধাগুলি আশপাশের গ্রামের যুবকদের জন্যও অর্থাৎ কেলানাডা, পরশালা, হরিপুরা, ভিক্কামোর, সিরমণ্ডি, বাবা রামদেব নগর ইত্যাদির জায়গার জন্যও সরবরাহ করা হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *