মিশরের প্রথম মহিলা হিসাবে পুরুষদের ফুটবল টিমে কোচিং করাবেন ফায়জা হিদার

cover pic

Mysepik Webdesk: এর আগে মিশরের জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের অধিনায়ক ছিলেন ফায়জা হিদার। তিনি এখন দেশের পুরুষদের ফুটবল ক্লাবের কোচিং করাতে প্রস্তুত। ফায়জা চতুর্থ ডিভিশনের ক্লাব আইডিয়াল গোল্ডির হয়ে একটি চুক্তি সই করেছেন। ক্লাবটি মিশরের গিজায় অবস্থিত। এরফলে হিদার মিশরের অন্যতম পেশাদার পুরুষদের ফুটবল ক্লাবকে কোচিং দিতে যাওয়ার জন্য প্রথম মহিলা হিসাবে উঠে এলেন।

আরও পড়ুন: সরকারিভাবে প্রকাশিত হল ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরের সময়সূচি

ফায়জা একজন প্রাক্তন ফুটবলার তথা একজন মহিলা ক্রীড়াবিদ হিসাবে তাঁর যাত্রার কথা বলতে গিয়ে এক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “শুরুতে এটা নিয়ে কিছুটা মশকরা হয়েছিল। তবে পরে তারা বুঝতে পেরেছিল যে, তারা কিছু শিখবে এখান থেকে। এর মধ্যে দিয়েই তারা তাদের দক্ষতারও বিকাশ ঘটাতে পারবে।”

আরও পড়ুন: আইপিএল: কলকাতা জয় পঞ্জাবের

৩৬ বছর বয়সি এই ফুটবলার মিশরীয় মহিলা ফুটবল জাতীয় দলে মিডফিল্ডারের ভূমিকা পালন করেছিলেন। দলের অধিনায়কও ছিলেন তিনি। ফাইজা জানিয়েছেন যে, তিনি ছোটবেলা থেকে ছেলেদের সঙ্গে রাস্তায় অনুশীলন করতেন। শৈশবকাল থেকেই ফুটবলের প্রতি আসক্ত হয়েছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য যে, ফায়জা হিদার প্রথম মিশরীয় কোচ, যিনি মহিলা পুরুষ নির্বিশেষে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃক মনোনীত প্রিমিয়ার স্কিলস কোচ এডুকিয়েটারের মর্যাদা পেয়েছেন। তিনি বলেন, “প্রিমিয়ার স্কিল প্রোগ্রাম আমার জন্য টার্নিং পয়েন্ট ছিল। এর মূল উদ্দেশ্য হল, কোচরা তাঁদের কমিউনিটিতে খেলাধুলার মাধ্যমে উন্নতি করতে পারবেন। তাছাড়াও তাঁদের কর্মসংস্থানের সুযোগকেও বিকাশ ঘটাতে পারবেন। এর মাধ্যমে কোনও শিশুকে সামাজিকভাবে বিকাশের সুযোগ এবং পরিবেশ তৈরি করতে সাহায্য করা যেতে পারে।”

তাঁর মেয়ের খেলাধুলার প্রতি ভালোবাসার বিরুদ্ধে প্রাথমিক সংরক্ষণ সম্পর্কে কথা বলছিলেন, হিদারের মা, খোদ্রা আবদেলরহমান। তিনি বলেন, “আমি তাকে বারণ করতাম। মেয়ে বলত, ‘না, আমি যাব।’ আসলে ও খেলা পছন্দ করত। এরপর আমি তাকে যেতে দিলাম। আল্লাহর কাছে দোয়া করলাম যে, তিনি মেয়েকে যেন সাহায্য করেন। মেয়ে গিয়েছিল এবং শুধু যাওয়া নয়, সে সফলও হয়েছে।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *