অবশেষে শেষ হল লড়াই, ক্লাসে ফিরছে ছাত্র-ছাত্রীরা

Visva Bharati

Mysepik Webdesk: অবশেষে উপাচার্য বনাম ছাত্র-ছাত্রী লড়াই এর অবসান হল। হাইকোর্টের রায়ে পুনরায় নিজের নিজের ক্লাসে ফিরছে বিশ্বভারতী থেকে বহিষ্কৃত তিন ছাত্র-ছাত্রী, সোমনাথ সৌ, রূপা চক্রবর্তী ও ফাল্গুনী পান। চলতি বছর জানুয়ারি মাসে ছাত্র আন্দলনের জেরে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ তিন ছাত্র-ছাত্রীকে অনৈতিক ভাবে তিন মাসের জন্য সাসপেন্ড করে এবং তারপর সেই সাসপেনসনের মেয়াদ বাড়তে বাড়তে পৌঁছায় নয় মাসে, যদিও সেখানেই থেমে থাকেনি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। চলতি বছর আগস্ট মাসে ফের ওই তিন ছাত্র ছাত্রীকে তিন বছরের জন্য বহিষ্কারের নোটিশ দেয় বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় ঘটনার ঘন ঘটা। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহেই বিশ্বভারতীর উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ ও উপাচার্য ঘেরাও কর্মসূচি শুরু করে ছাত্র-ছাত্রীরা এবং তাঁদেরকে সমর্থন জানিয়ে একে একে রাস্তায় নামে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক সংগঠন। স্লোগান ওঠে উপাচার্যের পদত্যাগের। যদিও তাতে থেমে থাকেনি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। তাঁরাও এই অবস্থান বিক্ষোভ ও উপাচার্য ঘেরাও কর্মসূচির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে কলকাতা হাইকোর্টে। শুরু হয় আইনি লড়াই। যদিও সেই লড়াইএ দু’ দফা রায় দানের পরে বুধবার মুখ পোড়ে উপাচার্যের। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তার রায় দানে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, বৃহস্পতিবারের মধ্যেই ওই তিন বহিষ্কৃত ছাত্র ছাত্রীকে পুনরায় ক্লাসে ফেরাতে হবে।

আরও পড়ুন: ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের তিন কোটি মানুষ, টুইট মুখ্যমন্ত্রীর

তবে বিশ্বভারতীও তাঁদের সিদ্ধান্তে অচল! হাইকোর্টের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে আট চল্লিশ ঘন্টা পর্যন্ত কোনো রকম তৎপরতা দেখায়নি ওই তিন ছাত্র-ছাত্রীকে ক্লাসে ফেরানো নিয়ে। কিন্তু শুক্রবার গভীর রাতে নড়ে চড়ে বসতে দেখা গেল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষকে। শুক্রবার গভীর রাতে বিশ্বভারতীর প্রোক্টর বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধানকে চিঠি করেন এবং সেখানে হাইকোর্টের রায়ের কথা উল্লেখ করে অনুরোধ করেন বিশ্বভারতী থেকে বহিষ্কৃত ওই তিন ছাত্র-ছাত্রী সোমনাথ সৌ, রূপা চক্রবর্তী ও ফাল্গুনী পানকে পুনরায় যাতে ক্লাসে ফেরানো যায় সেই ব্যবস্থা শুরু করতে। পাশাপাশি সেই চিঠির কপি পাঠানো হয় তিন ছাত্র ছাত্রীকেও।

আরও পড়ুন: পুজোর আগেই সুখবর, বাড়লো রাজ্যের সরকারি কর্মীদের পারিবারিক পেনশন

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কলকাতা হাইকোর্টের রায় প্রকাশের পরেই ওই তিন পড়ুয়া পুনরায় ক্লাসে ফিরতে চেয়ে অনুরোধ জানান। তবে শুক্রবার গভীর রাতে তাঁরা যে পুনরায় ক্লাসে ফিরতে পারবে সেই কথা জেনে কিছুটা হলেও স্বস্তি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে। তবে, কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তের পরেও যে উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দলনে জারি থাকছে সেই বিষয়ে আবার একবার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ছাত্র-ছাত্রীরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *