করোনা রুখতে দশ দফা নির্দেশিকা রাজ্য সরকারের, জেনে নিন

Mysepik Webdesk: দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করছে করোনাভাইরাস। ইতিমধ্যেই একাধিক রাজ্যে জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। নাইট কার্ফুও চালু করে দিয়েছে বেশ কয়েকটি রাজ্য। এদিকে পশ্চিমবঙ্গেও উল্লেখযোগ্য হরে বেড়েছে করোনাভাইরাসের প্রকোপ। করোনা রুখতে এবার তৎপর হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্য সরকার করোনাভাইরাস সংক্রান্ত একটি ১০ দফা নির্দেশিকা জারি করছে, যেখানে সরকারি-বেসরকারি কর্মীদের ওয়ার্ক ফ্রম হোমের পাশাপাশি রয়েছে আরও বেশ কয়েকটি নির্দেশিকা। দেখে নিন কী কী রয়েছে ওই নির্দেশিকায়।

আরও পড়ুন: বিশিষ্ট বামপন্থী নেতা এবং পুরুলিয়ার প্রাক্তন সাংসদ বীরসিং মাহাতোর জীবনাসন

১) জনবহুল এলাকায় যেখানে বহু মানুষের সমাগম বেশি হয়, সেখানে অবশ্যই মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। বজায় রাখতে হবে শারীরিক দূরত্ব। এই বিষয়ে খেয়াল রাখতে স্থানীয় প্রশাসনকে।

২) রাজ্যের সময় সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, শিল্প এবং বাণিজ্য কমপ্লেক্সে সপ্তাহে অন্তত একদিন স্যানিটাইজ করতে হবে।

৩) বাজারহাটে, বাসে-ট্রামে সফর করাকালীন প্রত্যেক যাত্রীকে অবশ্যই মাস্ক পড়তে হবে। নিয়মিত যানবাহনগুলিকে স্যানিটাইজ করতে হবে।

৪) বাজারগুলিতে যেখানে জনসমাগম বেশি হয়, সেই এলাকাগুলিকে নিয়মিত জীবাণুমুক্ত করতে হবে যা গত বছর নিয়মিত করা হত।

৫) শিল্পক্ষেত্র কিংবা কলকারখানাগুলিকে শ্রমিকের উপস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। সেখানে বেশি ভিড় করা যাবে না। প্রয়োজনে ওয়ার্ক ফ্রম হোম ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে।

৬) রাজ্যের সরকারি অফিসগুলিতে সর্বাধিক ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রতিদিন কর্মীদের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে অফিসে আনতে হবে।

৭) বেসরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে ওয়ার্ক ফ্রম হোম ব্যবস্থায় কাজ করতে হবে। খুব প্রয়োজন না হলে তারা অফিসে আসবেন না। বাড়ি থেকেই কাজ করবেন।

আরও পড়ুন: ‘সিনেমায় গোখরো দেখেছো, আসল গোখরো দেখোনি’, মিঠুনকে কটাক্ষ মমতার

৮) স্টেডিয়াম, সুইমিংপুল এবং মাল্টিপ্লেক্স গুলিতে আগের মতোই করোনাবিধি মেনে চলতে হবে। প্রত্যেককে মাস্ক পড়তে হবে এবং যথাযথ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

৯) শপিংমলগুলিতে গুলিতে আগের মতোই করোনাবিধি মেনে চলতে হবে। নিয়মিত জীবাণুমুক্ত করার পাশাপাশি ঢোকা এবং বেরনোর রাস্তায় স্যানিটাইজ করতে হবে।

১০) সরকারি গাইডলাইন না মানলে আইন অনুযায়ী কঠোর পদক্ষেপ করা হবে।

প্রসঙ্গত রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রামিত হয়েছেন ৭৭১৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৪ জনের।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *