গালওয়ানে ভারত-চিন সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে ৫ চিন সেনার, অবশেষে স্বীকারোক্তি চিনের

Mysepik Webdesk: ভারতের পক্ষ থেকে সরকারিভাবে ২০ জন সেনার মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা হলেও এতদিন পর্যন্ত চিনের তরফ থেকে গালওয়ানের সংঘর্ষে কোনও চিন সেনার মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা হয়নি। অবশেষে সরকারিভাবে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে চিন জানাল, গালওয়ানে ভারতীয় সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে পিপলস লিবারেশন আর্মির ৫ সেনা জওয়ান ও অফিসারের মৃত্যু হয়েছে। যদিও ভারত বা অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী সেই সংখ্যাটা আলাদা হলেও চিনের প্রকাশিত রিপোর্টে মাত্র ৫ জনের কথাই উল্লেখ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ভয়াবহ তুষারঝড়ের কবলে আমেরিকার টেক্সাস শহর, মৃত অন্তত ২১

Image result for india-china face off

গত বছর ১৫ জুন গালওয়ান সীমান্তে ভারতীয় সেনার সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পরে চিন সেনারা। লাল ফৌজ সীমান্ত বিধি লঙ্ঘন করে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করলে বাধা দেয় ভারতীয় সেনা। সেই সংঘাতে ২০ জন ভারতীয় সেনার মৃত্যু হয়। তারপর কেটে গিয়েছে আট মাস। এই আট মাসে কতজন চিন সেনার ওই সংঘাতে মৃত্যু হয়েছে, তা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটে ছিল চিন। জানা গিয়েছে, সংঘর্ষের ওই ঘটনায় লাল ফৌজের কমপক্ষে ৪৩ সেনা কর্মী জখম হয়েছিল। যদিও সেই খবর সরকারিভাবে প্রকাশ করেনি বেজিং। তবে চিনের এই স্বীকারোক্তিকে ভারত তাদের নৈতিক জয় হিসেবেই দেখছে।

আরও পড়ুন: উঠতে পারে কাশ্মীর প্রসঙ্গ, সংসদে ইমরান খানের বক্তব্যের কর্মসূচি বাতিল করল শ্রীলঙ্কা সরকার

Image result for india-china face off

কয়েকদিন আগেই সংসদে অধিবেশন চলাকালীন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এই প্রসঙ্গে জানান, ধীরে ধীরে সীমান্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে। তিনি জানান, প্যাংগং হ্রদের উত্তর-দক্ষিণ বরাবর এলাকা থেকে সেনা সরানোর বিষয়ে দু’পক্ষ আলোচনা শুরু করেছে। যত দ্রুত সম্ভব সেনা সরাতে দু’দেশই সহমত পোষণ করেছে। তাঁর কথায়, “গত বছর থেকেই আমরা সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলাপ আলোচনা চালিয়েছি। চিনকে আমরা জানিয়েছি, তিনটি নীতির ভিত্তিতে আমরা সমাধান চাই। প্রথমত, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা নিয়ে উভয়পক্ষকেই সহমত হতে হবে। দ্বিতীয়ত, স্থিতাবস্থা বিঘ্নিত করার চেষ্টা যেন না হয় এবং তৃতীয়ত, সব ধরনের সমঝোতায় সহমত হতে হবে দু’পক্ষকে।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *