বীরভূমে গণ ধর্ষনের অভিযোগ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে, গ্রেপ্তার ২

মহিউদ্দীন আহমেদ, সিউড়ী

বীরভূমের মহম্মদবাজারে এক আদিবাসী সম্প্রদায়ের মহিলাকে গণ ধর্ষনের অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় মহম্মদবাজার এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। সূত্রের খবর, কয়েক দিন আগে মহম্মদবাজার থানার বোরাবাদ গ্রামের এক মহিলা অভিযোগ জানিয়েছিলেন, তাঁকে পাঁচ জন মিলে গণ ধর্ষন করেছে। তার অভিযোগের ভিত্তিতে মহম্মদবাজার থানার পুলিশ শনিবার রাতে ২ জনকে গ্রেপ্তার করে।

আরও পড়ুন: এবার বাড়িতে বসেই হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষার সুবিধা

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত মঙ্গলবার তিন সন্তানের মা ওই বিধবা মহিলা এক যুবকের সঙ্গে জঙ্গলের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময় পাঁচ জন মিলে তার পথ আটকায় এবং তাকে বলপূর্বক একটি নির্জন এলাকায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে। এই ঘটনার পরেই ওই মহিলা মহম্মদবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তবে গ্রামবাসীদের একাংশের মতে ধর্ষিতা মহিলার সঙ্গে ওই অ-আদিবাসী যুবকের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। ঘটনার দিন ওই যুবকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখেছিলেন গ্রামবাসীরা। তখনি তাদের সেখানেই আটকে সালিসি সভা বসানো হয়। সেই সালিসি সভায় মহিলা ও তার প্রেমিককে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং তাদের দু’জনকে আর মেলামেশা করতে মানা করা হয়।

আরও পড়ুন: প্রাণ বাঁচাতে ছেলেকে নিয়ে রক্তাক্ত শরীরে বাইক চালিয়ে ছুটলেন বাবা, কিন্তু কেন?

গ্রামবাসীদের দাবি, সেই কারণেই ওই মহিলা প্রতিহিংসা বসত ধর্ষনের অভিযোগ জানিয়েছে। এদিকে ওই মহিলার মেডিক্যাল টেস্ট করানো হয়েছে। যে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়েছে তাদের মধ্যে ৩ জন পলাতক। পুলিশ তাদেরকে খুঁজছে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বীরভূম জেলা আদিবাসী উন্নয়ন গাঁওতার নেতা নেতা সুনীল সোরেন বলেন, “গোটা ঘটনার নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা চাই পুলিশ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করুক।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *